You are here
নীড়পাতা > অন্য মাধ্যমে প্রকাশিত > অনলাইন > ইন্দোনেশিয়ায় শিশু ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ড ও যৌনাঙ্গ কাটার বিধান জারি

ইন্দোনেশিয়ায় শিশু ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ড ও যৌনাঙ্গ কাটার বিধান জারি

ধর্ষণবিরোধী উত্তাল প্রতিরোধের মুখে ইন্দোনেশিয়ায় শিশু ধর্ষণের সাজা আরও কঠোর করা হয়েছে। শিশু ধর্ষণের সর্বোচ্চ সাজা হিসেবে মৃত্যুদণ্ডের বিধান জারি করা হয়েছে। এছাড়া ধর্ষণকারীর যৌনাঙ্গ কেটে নেওয়ার বিধানও রাখা হয়েছে নতুন আইনে। প্রেসিডেন্টের এক ডিক্রি জারির মাধ্যমে নতুন বিধান কার্যকরের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। পরে আইনটি সংসদে পাস করা হবে।
নতুন বিধান অনুযায়ী, শিশু ধর্ষণে সাজাপ্রাপ্ত কারও শাস্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও তাকে ইলেকট্রনিক মনিটরিং ডিভাইস পরতে হতে পারে।
এরআগে ইন্দোনেশিয়ায় ধর্ষণের সাজা হিসেবে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের বিধান জারি ছিল। নারী ও শিশুর ক্ষেত্রে সাজার আলাদা কোনও বিধান ছিল না। তবে সম্প্রতি ১৪ বছরের এক বালিকাসহ বেশকিছু ধর্ষণের ঘটনায় ফুঁসে ওঠে সেখানকার মানুষ। দাবি ওঠে, ধর্ষণের সাজায় কঠোরতা আনার। সেই দাবির মুখেই শিশু ধর্ষণের সাজা আরও কঠোর করার ঘোষণা দিল ইন্দোনেশিয়া।
ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইডিডো বলেন, ‘শিশু ধর্ষণের আইনে এই পরিবর্তন আনার মধ্য দিয়ে আমরা শিশুদের ওপর যৌন নিপীড়নের ঘটনায় লাগাম টানতে পারব’।
সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রায় ইয়ুন নামের এক ১৪ বছর বয়সী স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ইন্দোনেশিয়াজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। একের পর এক সামনে আসে অন্যান্য ধর্ষণের ঘটনাও। বানতেন প্রদেশের ১৮ বছর বয়সী এক কারখানা শ্রমিককেও একইভাবে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয় বলে সংবাদ প্রকাশ করে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। এর পরপরই শিশু ধর্ষণের নতুন সাজার বিধান জারির ঘোষণা এলো। প্রেসিডেন্টের ডিক্রির মাধ্যমে কার্যকর হওয়া এই নতুন বিধান পরবর্তীতে পার্লামেন্টে পাস করা হবে।

সূত্র: বিবিসি

Similar Articles

Leave a Reply