ডি-লিট সম্মান পেলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা

অবশেষে ডি-লিট সম্মান পেলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাহিত্য, সংস্কৃতি ও সামাজিক অবদানের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডি লিট সম্মানে ভূষিত করে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ডি-লিট গ্রহণের সময় আবেগমথিত মমতা বললেন, আমি খুব সাধারণ। আমার জীবন অবহেলার, অসম্মানের, সংগ্রামের। এমন সম্মান পাব কোনওদিন ভাবিনি। সারা জীবন লড়াই করেছি। এই

মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী (পর্ব:৯)

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে ঘিরে এক কাতারে এসে দাঁড়িয়েছিল আবালবৃদ্ধবনিতা, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মুটে-মজুর-কুলি, পেশাজীবি-শ্রমজীবী সবাই। মুক্তির আকাঙ্খায় মুছে গিয়েছিল ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গ-অবস্থানভেদ। মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামের, ত্যাগের, সহ্যের, সাহসের এক অকৃত্রিম তুলনাহীন ভূমিকা পালন করেছিলেন আমাদের নারীরা। মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলের নারীদের ভূমিকা নিয়ে  ‘মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী’ শিরোনামের ধারাবাহিক প্রবন্ধটি উইমেন ওয়ার্ডস  এর পাঠকদের জন্য লিখেছেন– অপূর্ব শর্মা অস্ত্র হাতে যুদ্ধের ময়দানে সময়ের প্রয়োজনে একাত্তরে অনেক

বাংলাদেশি দুই নারী পেলেন ব্রিটিশ রানির সম্মাননা

ব্রিটেনের রানির বিশেষ সন্মাননা মেম্বারস অব দ্য ওর্ডার অব দ্য ব্রিটিশ এম্পায়ার (এমবিই) এবং অফিসার অব দ্য অর্ডার অব দ্য ব্রিটিশ এম্পায়ার (ওবিই) পেলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত দুই ব্রিটিশ নারী। তারা হলেন ড. আনওয়ারা আলী ও ড. পপি সুলতানা জামান। রাজনীতি, সঙ্গীত, সাহিত্য, স্বাস্থ্য, খেলাধুলা ও কমিউনিটিতে বিশেষ অবদানের জন্যে ১১ শ

মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী (পর্ব:৮)

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে ঘিরে এক কাতারে এসে দাঁড়িয়েছিল আবালবৃদ্ধবনিতা, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মুটে-মজুর-কুলি, পেশাজীবি-শ্রমজীবী সবাই। মুক্তির আকাঙ্খায় মুছে গিয়েছিল ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গ-অবস্থানভেদ। মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামের, ত্যাগের, সহ্যের, সাহসের এক অকৃত্রিম তুলনাহীন ভূমিকা পালন করেছিলেন আমাদের নারীরা। মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলের নারীদের ভূমিকা নিয়ে  ‘মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী’ শিরোনামের ধারাবাহিক প্রবন্ধটি উইমেন ওয়ার্ডস  এর পাঠকদের জন্য লিখেছেন– অপূর্ব শর্মা অস্ত্র হাতে যুদ্ধের ময়দানে সময়ের প্রয়োজনে একাত্তরে অনেক

আরব আমিরাতের প্রথম নারী চিকিৎসক

ভারতীয় নাগরিক জুলেখা দাউদকেই সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রথম নারী চিকিৎসক বলে মনে করা হয়। এই দেশটির স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে পাল্টে দেয়ার ক্ষেত্রে এক বড় ভূমিকা রেখেছেন তিনি। বিবিসি হিন্দির জুবায়ের আহমেদ কথা বলেছেন তাঁর সঙ্গে। উইমেন ওয়ার্ডস এর পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো সেই সাক্ষাৎকার। জুলেখা দাউদের বয়স এখন ৮০। ১৯৬৩ সালে প্রথম

কাবিটা নীতিমালায় নারীর অন্তর্ভুক্তি

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী হাওর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প কমিটি গঠন, বাস্তবায়ন ও মনিটরিং কমিটিতে একজন নারী প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি ও বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. শামীমা শাহরিয়ারের দাবির প্রেক্ষিতে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় কাবিটা নীতিমালা সংশোধন

মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী (পর্ব:৭)

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে ঘিরে এক কাতারে এসে দাঁড়িয়েছিল আবালবৃদ্ধবনিতা, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মুটে-মজুর-কুলি, পেশাজীবি-শ্রমজীবী সবাই। মুক্তির আকাঙ্খায় মুছে গিয়েছিল ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গ-অবস্থানভেদ। মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামের, ত্যাগের, সহ্যের, সাহসের এক অকৃত্রিম তুলনাহীন ভূমিকা পালন করেছিলেন আমাদের নারীরা। মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলের নারীদের ভূমিকা নিয়ে  ‘মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী’ শিরোনামের ধারাবাহিক প্রবন্ধটি উইমেন ওয়ার্ডস  এর পাঠকদের জন্য লিখেছেন– অপূর্ব শর্মা সংগঠক ছিলেন যারা মুক্তিযুদ্ধে নানাভাবে সম্পৃক্ত

মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী (পর্ব:৬)

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে ঘিরে এক কাতারে এসে দাঁড়িয়েছিল আবালবৃদ্ধবনিতা, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মুটে-মজুর-কুলি, পেশাজীবি-শ্রমজীবী সবাই। মুক্তির আকাঙ্খায় মুছে গিয়েছিল ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গ-অবস্থানভেদ। মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামের, ত্যাগের, সহ্যের, সাহসের এক অকৃত্রিম তুলনাহীন ভূমিকা পালন করেছিলেন আমাদের নারীরা। মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলের নারীদের ভূমিকা নিয়ে  ‘মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী’ শিরোনামের ধারাবাহিক প্রবন্ধটি উইমেন ওয়ার্ডস  এর পাঠকদের জন্য লিখেছেন– অপূর্ব শর্মা সংগঠক ছিলেন যারা মুক্তিযুদ্ধে নানাভাবে সম্পৃক্ত

সিলেটের প্রথম নারী আলোক প্রক্ষেপক তিথি

নিজস্ব প্রতিবেদক তিথি খান। নাট্যনিকেতনের অভিনয় শিল্পী। ভূমিকণ্যা নাটকে নাম ভূমিকায় তার অভিনয় শৈলী প্রত্যক্ষ করেছেন সিলেটের দর্শকেরা। কিন্তু সে যে আলোক প্রক্ষেপনেও দক্ষ, এবার সেটাই দেখলো নগরবাসী। শতভিষা'র অভিষেক অনুষ্ঠানের দিন ‘নারীপুরাণ' নাটকে প্রথমবারের মতো আলোকপ্রক্ষেপনের দায়িত্ব পালন করে এক নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন তিনি। নাটকটি মঞ্চাযিত হয় গত ৩

মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী (পর্ব:৫)

আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধকে ঘিরে এক কাতারে এসে দাঁড়িয়েছিল আবালবৃদ্ধবনিতা, ছাত্র-শিক্ষক, কৃষক-মুটে-মজুর-কুলি, পেশাজীবি-শ্রমজীবী সবাই। মুক্তির আকাঙ্খায় মুছে গিয়েছিল ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গ-অবস্থানভেদ। মুক্তিযুদ্ধে সংগ্রামের, ত্যাগের, সহ্যের, সাহসের এক অকৃত্রিম তুলনাহীন ভূমিকা পালন করেছিলেন আমাদের নারীরা। মুক্তিযুদ্ধে সিলেট অঞ্চলের নারীদের ভূমিকা নিয়ে  ‘মুক্তিযুদ্ধে সিলেটের নারী’ শিরোনামের ধারাবাহিক প্রবন্ধটি উইমেন ওয়ার্ডস  এর পাঠকদের জন্য লিখেছেন– অপূর্ব শর্মা সংগঠক ছিলেন যারা মুক্তিযুদ্ধে নানাভাবে সম্পৃক্ত