ফিচার

গাণিতিক হিসেবে সবচেয়ে নিখুঁত সুন্দরী তিনি

গাণিতিক হিসেবে সবচেয়ে নিখুঁত সুন্দরী তিনি

গ্রিক গণিতবিদ্যার বিচারে বিশ্বের সেরা সুন্দরী হয়েছেন মার্কিন মডেল বেলা হাদিদ। সম্প্রতি ‘গোল্ডেন রেশিও অব বিউটি ফাই স্ট্যান্ডার্ডস’-এ সবচেয়ে নিখুঁত মুখশ্রীর অধিকারী হয়েছেন এ সুপার মডেল। এ পরিমাপে সবচেয়ে বেশি ৯৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন ২৩ বছর বয়সী এই সুপার মডেল বেলা। ডেইলি মেইল ও সিএনএন জানিয়েছে, বিশেষজ্ঞরা মূলত তারকাদের মুখের মাপ নিয়ে এই ফলাফল ঘোষণা করেছেন। গবেষণাটি পরিচালনা করেছেন লন্ডনের প্রসিদ্ধ ফেসিয়াল কসমেটিকস সার্জন জুলিয়ান ডি সিলভা। তারকাদের গোল্ডেন রেশিও পরিমাপ করে তিনি বলেন, মুখমণ্ডলের বিচারে বেলা হাদিদ পরিষ্কারভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার মুখই সবচেয়ে নিখুঁত। চিবুকের জন্য তিনি সর্বোচ্চ স্কোর করেছেন, ৯৯ দশমিক ৭ শতাংশ। যা নিখুঁত থেকে মাত্র দশমিক ৩ শতাংশ দূরে। তবে চোখের অবস্থানে নিখুঁত হওয়ার দিক থেকে তিনি স্কারলেট জোহানসনের পেছনে রয়েছেন। গড়নে বিয়ন্সে অনেক এগিয়ে থাকলেও কপাল ও ঠোঁট
২১ বিলিয়নিয়ারের সাক্ষাৎকারে সাফল্যের ছয় অভ্যাস

২১ বিলিয়নিয়ারের সাক্ষাৎকারে সাফল্যের ছয় অভ্যাস

উদ্যোক্তাদের মনোবিজ্ঞান বিশেষজ্ঞ রাফায়েল বদজিয়াগ তার ‘দ্য বিলিয়ন ডলার সিক্রেট: টুইয়েন্টি প্রিন্সিপাল অব বিলিওনার ওয়েলথ অ্যান্ড সাকসেস’ বইয়ে লিখেছেন, দীর্ঘমেয়াদে আপনার অভ্যাসগুলোই আপনার ভবিষ্যত নির্ধারণ করবে। একটি শক্তিশালী ভিত্তি ব্যতীত আপনি সম্পদ তৈরি বা সফল হতে পারবেন না। রাফায়েল দীর্ঘ পাঁচ বছর উদ্যোক্তাদের নিয়ে গবেষণা করেছেন। নিজে নিজেই চেষ্টা করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন এমন ২১ জন উদ্যোক্তার সাক্ষাত্কার নিয়েছেন। সাক্ষাত্কারে নিয়ে সবারই ছয়টি অভ্যাস কথা মিল পেয়েছেন। আপনি যদি জীবনে সফল হতে চান তাহলে জেনে নিন তারা সবাই যে অভ্যাসগুলো মেনে চলতেন। সকালে ঘুম থেকে ওঠা সফল উদ্যোক্তাদের একটি সাধারণ অভ্যাস হলো সকাল বেলা ঘুম থেকে ওঠেন। রাফায়েল সাক্ষাৎকার নিয়েছেন এমন ব্যক্তিরা প্রায় সবাই জানিয়েছেন, তারা সবাই সকাল ৫ টা ৩০ মিনিটে ঘুম থেকে ওঠে যেতেন। তারা আরো জানান, সফল হওয়া পথে সকাল
মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে বাংলাদেশের কর্মজীবী মায়েদের উদ্বেগ

মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে বাংলাদেশের কর্মজীবী মায়েদের উদ্বেগ

বাংলাদেশে একজন মা যখন মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকেন, তখন তার দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়, এই ছুটি শেষ হওয়ার পর তার সন্তানের দেখভাল কিভাবে হবে। যখন অফিস শুরু করবেন তখন তার সন্তানকে কার কাছে রেখে যাবেন-এমন আরও নানা বিষয় নিয়ে উদ্বিগ্নতায় ভোগেন এই মায়েরা। তেমনই একজন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সাইদা হক। তার মাতৃত্বকালীন ছুটি শুরু হয়েছে সন্তান জন্ম দেয়ার কয়েকদিন আগে থেকেই। কিন্তু এখন থেকেই তিনি দুশ্চিন্তা করছেন যে এই ছুটি শেষ হওয়ার পর তার সন্তানের দেখভাল কিভাবে হবে। মাতৃত্বকালীন ছুটি পর্যাপ্ত না থাকা সেইসঙ্গে সন্তানকে কার কাছে রেখে যাবেন সেটাই যেন এখন তার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। "প্রেগনেন্সি লিভ শুরু হওয়ার আগেও আমি বেশ কয়েকবার অসুস্থ হয়েছিলাম, কিন্তু তারপরও ছুটি নেইনি। চেয়েছি যে ছুটির পুরো সময়টা যেন বাচ্চাকে দিতে পারি। এখন ভাবি ছুটি শেষ হওয়ার পর
ব্যর্থতা কাটিয়ে সফল হওয়ার যে আট পরামর্শ দিচ্ছেন বিখ্যাত নারীরা

ব্যর্থতা কাটিয়ে সফল হওয়ার যে আট পরামর্শ দিচ্ছেন বিখ্যাত নারীরা

সফল হওয়া সহজ কাজ নয়। নারী বা পুরুষ যেকোন মানুষের জন্যই কঠিন কাজ সেটি। একজন নারীর জন্য সেটা আরো কঠিন। কিন্তু সফল আর জ্ঞানী হিসেবে পরিচিত বিশ্বের কয়েকজন বিখ্যাত নারী বলছেন জীবনে কয়েকটি মূলমন্ত্র অনুসরণ করতে পারলে তা যে কাউকে সফল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে সাহায্য করবে। ১. সবার আগে নিজেকে গুরুত্ব দিন জীবনের যে ক্ষেত্রেই আপনি সফল হতে চান, আপনাকে নিজের যত্ন নিতে শিখতে হবে। যদি আপনি নিজেকে সবচাইতে বেশি গুরুত্ব দিতে না পারেন, তাহলে আপনি জীবনের ভারসাম্য খুঁজে পাবেন না। এক্ষেত্রে নিজের শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দিতে বলছেন নামকরা অভিনেত্রী এমা থম্পসন। এরপরই আসবে আপনার সবচাইতে কাছের মানুষেরা, মানে পরিবার ও ঘনিষ্ঠ মানুষেরা। তাদের জীবনের দৈনন্দিন খবরাখবর রাখুন। "যদিও হয়ত রোজ এ কাজটি করা কঠিন, তবু চেষ্টা করুন।" এর পর শুরু করুন নিজের কাজ। ২. সামনে এগিয়ে যাওয়া থামাবেন
সহজে এলার্জিকে বিদায় জানান

সহজে এলার্জিকে বিদায় জানান

ঘরের ধুলাবালি পরিষ্কার করছেন? হঠাৎ করে হাঁচি এবং পরে শ্বাসকষ্ট অথবা ফুলের গন্ধ নিচ্ছেন বা গরুর মাংস, চিংড়ি, ইলিশ ও গরুর দুধ খেলেই শুরু হলো গা চুলকানি বা চামড়ায় লাল লাল চাকা হয়ে ফুলে ওঠা। এগুলো হলে আপনার এলার্জি আছে ধরে নিতে হবে। মানব জীবনে এলার্জি কতটা ভয়ংকর সেটা ভুক্তভোগীরাই জানে। উপশমের জন্য কতজন কত কি না করেন। এবার প্রায় বিনা পয়সায় এলার্জিকে গুডবাই জানান আজীবনের জন্য। যা করতে হবে আপনাকে – ০১. কেজি নিম পাতা ভালো করে রোদে শুকিয়ে নিন। ০২. শুকনো নিম পাতা পাটায় পিষে গুড়ো করুন এবং সেই গুড়ো ভালো একটি কৌটায় ভরে রাখুন ০৩. এবার ইসব গুলের ভুষি কিনুন। ১ চা চামচের তিন ভাগের এক ভাগ নিম পাতার গুড়া ও এক চা চামচ ভুষি ১ গ্লাস পানিতে আধা ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। ০৪. আধা ঘন্টা পর চামচ দিয়ে ভালো করে নাড়ুন। ০৫. প্রতি দিন সকালে খালি পেটে, দুপুরে ভরা পেটে এবং রাত্রে শোয়ার আগে খেয়ে ফেলুন।
দারাজ শুরু করল ‘নন্দিনী’ প্রকল্প

দারাজ শুরু করল ‘নন্দিনী’ প্রকল্প

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ বাংলাদেশ (daraz.com.bd)। সম্প্রতি তারা নারীদের জন্য শুরু করল একটি বিশেষ প্রকল্প 'দারাজ নন্দিনী'। প্রযুক্তির মাধ্যমে নারী ক্ষমতায়ন ও ই-কমার্স বিষয়ক শিক্ষার মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তা তৈরি করাই এই প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য। নারীদের প্রতি নিবেদিত বিশেষ এই প্রকল্পে বছরব্যাপী অন্তর্ভুক্ত থাকবে বিভিন্ন ক্যাম্পেইন যেখানে থাকবে বিশাল অঙ্কের ডিসকাউন্ট, ফ্ল্যাশ সেল, মেগা ডিল ও বাহারি সব ভাউচার। ১৩ জানুয়ারি থেকে দারাজ নন্দিনী আয়োজন করছে বিশেষ ক্যাম্পেইন 'পাওয়ার ওমেন' যা চলবে ১৯ জানুয়ারি পর্যন্ত। ৭ দিনব্যাপী এই ক্যাম্পেইনে থাকছে ৭৬% পর্যন্ত মূল্যছাড়। এ ছাড়াও থাকছে ফ্যাশন, বিউটি অ্যান্ড ওয়েলনেস, স্পোর্টস অ্যান্ড আউটডোর পণ্যের ওপর ফ্ল্যাশসেল ও বিভিন্ন রকমের ডিসকাউন্ট ভাউচার।   সিটি ব্যাংক ডেবিট/ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে লেনেদেনে পাওয়া যাবে ১০% পর্যন্ত মূল্
‘সিনিয়র সিটিজেন’ হচ্ছে বার্বি

‘সিনিয়র সিটিজেন’ হচ্ছে বার্বি

কয়েক দিন পরেই ষাট পেরোবেন তিনি। হ্যাঁ, ‘সিনিয়র সিটিজেন’ হচ্ছে দুনিয়ার সব থেকে জনপ্রিয় পুতুল— বার্বি।  সেটা ১৯৫৯ সালের কথা।  ম্যাটেল সংস্থার অন্যতম কর্ণধার রুথ হ্যান্ডলার দেখতেন, তাঁর মেয়ে বারবারা যে সব পুতুল নিয়ে খেলে, সেগুলো সবই ‘বেবি ডল’, অর্থাৎ বাচ্চা বাচ্চা দেখতে পুতুল। রুথ খেয়াল করে দেখেন, ছোট্ট বারবারা মাঝেমধ্যেই কাগজের পুতুল বানিয়ে খেলছে, আর সেই সব পুতুল দেখতে একদমই বাচ্চা মেয়েদের মতো নয়, অনেকটাই বড় তারা। বারবারার সেই কাগুজে পুতুল থেকেই ‘প্রাপ্তবয়স্ক’ পুতুল বানানোর বুদ্ধি মাথায় আসে রুথের। মেয়ের নামের সঙ্গে মিলিয়েই পুতুলটির নাম রাখেন— বার্বি। পরে রুথ বলেছেন, তাঁর ধারণাই ছিল না, এত জনপ্রিয় হবে সেই পুতুল। ঠিক কতটা জনপ্রিয়? ১৯৫৯ সালের ৯ মার্চ আমেরিকার এক পুতুল মেলায় অবতীর্ণ হওয়ার পরে একশো কোটির বেশি বার্বি বিক্রি হয়েছে পৃথিবী জুড়ে। প্রথম বছরেই বিক্রি হয় তিন লক্ষ পুতুল। এখন ১৫টি
বাজারে এসেছে ‘মেনস্ট্রুয়াল ড্রিঙ্কস’

বাজারে এসেছে ‘মেনস্ট্রুয়াল ড্রিঙ্কস’

পিরিয়ড হলো মেয়েদের স্বাভাবিক শরীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া। কিন্তু পুষ্টিহীনতাসহ নানা কারণে বেশিরভাগ মেয়েদের প্রতিমাসেই পিরিয়ডের সময়টা ভীষণ কষ্টে কাটাতে হয়। কখনও অনিয়মিত পিরিয়ড, কখনও পেটে বা কোমরে ব্যথা, কখনও বা এই সময় হজমের সমস্যা কিংবা গা বমি ভাব। মাসের কয়েকটা দিন এই সব সমস্যার কারণে কাজকর্ম শিকেয় তুলতে হয় অনেককেই। চিকিৎসকদের মতে, সাধারণত, সন্তানধারণের পর পিরিয়ডের কষ্ট অনেকের কমে যায়। কিন্তু তার আগে পর্যন্ত পিরিয়ডের সময় নিষিক্তের জন্য তৈরি হওয়া ডিম্বাণু শুক্রাণুর অভাবে নষ্ট হয়ে যায়। প্রতি মাসেই এমনটা হতে থাকায় তলপেটে ব্যথা হয়। এসময় গরম পানির ব্যাগ দিয়ে শুয়ে থাকতে হয়। এছাড়া পিরিয়ড হলেই অকারণ চিন্তা, মানসিক অবসাদ, শারীরিক কষ্টের কারণে বিরক্তিইত্যাদি নানা কারণে শরীর ও মন ভাল থাকে না। মেয়েদের এই বিশেষ সময়ের কথা মাথায় রেখেই ভারতের বাজারে এসেছে 'মেনস্ট্রুয়াল ড্রিঙ্কস'। প্রস্তুতকারী সংস্থার দাবি
লম্বা চুল দিয়ে গিনেস খেতাব জয়

লম্বা চুল দিয়ে গিনেস খেতাব জয়

কোমর অবধি চুল, বা হাঁটু পার করা চুলের গল্প তো অনেক শুনেছেন। কিন্তু একেবারে গোড়ালি পর্যন্ত চুল দেখেছেন? ১০ বছর আগে পার্লারে চুল কাটাতে গিয়ে বিচ্ছিরি হেয়ারকাট নিয়ে সমস্যায় পড়েছিলেন ছয় বছরের মেয়ে। আজ বিশ্বের সব থেকে লম্বা চুলের অধিকারি ওই কিশোরীই গিনেস ওয়ার্ল্ডের খেতাব জয় করেছেন চুলের সৌজন্যেই। গুজরাটের বাসিন্দা নীলাংশী প্যাটেল খারাপ চুলকাটার ঘটনায় বিরক্ত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন জীবনে চুলই কাটবেন না আর। ষোড়শী এই কিশোরী বিশ্বে দীর্ঘতম চুলের জন্য গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়েছেন। তার চুলের দৈর্ঘ্য শুনে বাস্তবিকই স্তম্ভিত হয়ে যেতে হয়। ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি মাপের চুল নিয়ে নীলাংশী যেন রূপকথার র‌্যাপুনজেল! তিনি বলেন, বিচ্ছিরিভাবে আমার চুল কেটেছিল সেবার। এতই রাগ আর বিরক্তি হয়েছিল যে, আমি সিদ্ধান্ত নিই আর কখনই চুল কাটব না। তখন আমার বয়স ছিল মাত্র ৬। সেই থেকে ১০ বছর পার হলো, চুল কাটিনি আমি। নীলাংশিকে
কষ্ট ঠেকানো যায় না… শুধু সয়ে যেতে হয়

কষ্ট ঠেকানো যায় না… শুধু সয়ে যেতে হয়

মাসরুর রাসেল একটা সম্পর্কে শুধু ভালোবাসা থাকেনা; রাগ, অভিমান, কষ্ট সব থাকে, সব ! কিন্তু সমস্যা হলো মানুষ শুধু কষ্ট পেলেই একজন আরেকজনকে ভুলে যেতে চায়! আচ্ছা চাইলেই কি কাউকে ভুলে যাওয়া যায়? যায়না.. আরো বেশি মনে পড়ে, মনে পড়ে যায় তার স্মৃতিগুলো। একটা সময় যে মানুষটার ফোন কল আপনি ঘুম ভাঙ্গানোর ‘রিংটোন’ হিসেবে ব্যবহার করতেন, সে যখন বেলা দশটা বেজে যাবার পরেও কোনো কল করেনা.. তখন তাকে মনে পড়বেই; স্বাভাবিক। সামান্য রাত জাগার জন্য যে মানুষটা আপনাকে রোজ এত্তোগুলা ঝাড়ি দিয়ে গাল ফুলিয়ে থাকতো, সেখানে আপনি ভোর রাতে ঘুমালেও যখন কেউ কিছু বলে না, তখন তো শূন্যতা অনূভব করবেই.. এটাই সিস্টেম। জীবনে ঘটে যাওয়া অনেক কিছুই মানুষ ভুলতে পারে না; অবচেতন মন তাকে ভুলতে দেয় না… হঠাৎ হঠাৎ মনে করিয়ে দেয়..!! আচ্ছা কেউ যখন কাউকে ভুলতেই না পারে তাহলে টিকে থাকে কিভাবে? মানুষ একটা আজব প্রাণী, মানুষ সব পারে, সব"! পাহ