নীড়পাতা Archives - Page 142 of 143 - Women Words

নীড়পাতা

নষ্ট বীজ, দুষ্টু মানব

নষ্ট বীজ, দুষ্টু মানব

রাহিমা বেগম ভাল বীজ সংরক্ষণ করা কষ্টকর । খারাপ বীজ যে কোন ভাবে ফেলে রাখলেও মাটি-পানির স্পর্শ পেলে নতুন চারার জন্ম দেয়। তারপর বিস্তার করতে থাকে তার শাখাপ্রশাখা। একাত্তরের খুনী ধর্ষণকারীদের তখনই যদি শাস্তি দেওয়া হতো তাহলে হয়ত এদেশের রাস্তা-ঘাটে, বাস-টার্মিনালে, মসজিদ, মন্দির, স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে, এমনকি সংরক্ষিত নিরাপদ সেনানিবাসে এত ধর্ষণকারী ছড়িয়ে ছিটিয়ে থেকে নির্ভিগ্নে ধর্ষণ করে নিরাপদে চলাফেরা করতে পারতনা। তখনকার ধর্ষণকারী বীজগুলো নষ্ট না করায় আজ এদের মাধ্যমে এত এত বিষ বৃক্ষের জন্ম হয়েছে। সব বিষবৃক্ষ সমূলে উৎপাটন করা শুধু কষ্টকর নয় অসম্ভব ও বটে। তবে সকল বিষবৃক্ষগুলো ধ্বংস করতেই হবে, এর কোন বিকল্প নেই। একাত্তরের ধর্ষণকারী, ধর্ষণের সহযোগীতাকারী, ধর্ষণ আড়ালকারী, প্রশ্রয়দাতা আর বর্তমান সময়ের ধর্ষণকারী, ধর্ষণকাজে সহযোগীতাকারী, মদদকারী, আশ্রয় প্রশ্রয়দানকারী সকলে আমার কাছে সমান অপরাধী। এ
দগ্ধ শরীরকে নয়, ভয় শুধু আইএস’কে

দগ্ধ শরীরকে নয়, ভয় শুধু আইএস’কে

ওদের গলা এখনও কানে বাজে ইয়াসমিনের। যে গলা শুনে সিঁটিয়ে গিয়েছিল বছর সতেরোর ইরাকের ইয়েজিদি কিশোরী। ওর স্থির বিশ্বাস, তাঁবুর বাইরে আইএস জঙ্গিরাই তখন কথাবার্তা বলছিল। আবার এসেছে ওরা! আশঙ্কাই যথেষ্ট ছিল। আইএস জঙ্গিদের হাতে তা হলে আবার ধর্ষিত হতে হবে। ভাবতে ভাবতে ইয়াসমিন সিদ্ধান্ত নেয়, আর নয়। এ বার কিছু একটা করতেই হবে। আইএস জঙ্গিরা যেন তাকে দেখে নাক সিঁটকে চলে যায়। তাই নিজেকে সে পেট্রোলে চুবিয়ে ফেলে এক মুহূর্তে। তার পর একটা দেশলাই কাঠি। চুল আর মুখ ঝলসে গেল কিছু ক্ষণের মধ্যে। অসহ্য সেই যন্ত্রণাকেও ভয় পায়নি মেয়েটি। দগ্ধ শরীরে এখন কান, ঠোঁট আর নাক বলতে কিছু নেই। এই অবস্থায় উত্তর ইরাকের এক শরণার্থী শিবিরে গত বছর ইয়াসমিনকে খুঁজে পান জার্মান চিকিৎসক ইয়ান কিজিলহান। পোড়া শরীর আর ভীত মন নিয়ে মেয়েটি তখনও ভেবে যাচ্ছে আইএস জঙ্গিরা বুঝি আবার আসবে। ইয়াসমিন এখন ১৮। আইএস-এর হাত থেকে যে ১১০০ ইয়েজিদি মহিলা (ব
যে শিশুর ছবি দেখে বিশ্ব হতবাক

যে শিশুর ছবি দেখে বিশ্ব হতবাক

সারাগায়ে ধূলি মাখা,রক্তাক্ত, ভীত শিশুটি একটি অ্যাম্বুলেন্সের সিটে বসে আছে। একটু পরে সে নিজের মুখে হাত বুলিয়ে রক্ত দেখতে পেয়ে চমকে যায়। এটি হল সিরিয়ায় বিমান হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া একটি শিশুকে উদ্ধারের পর তোলা ভিডিও এবং ছবি। যা হতবাক করে দিয়েছে সারা বিশ্বকে। বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, ওমরান দাকনিশ নামের (৫) শিশুটিকে মাথায় আঘাতের জন্য চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। কিন্তু তার পরিবারের সদস্যদের কি হয়েছে, তা এখনো জানা যায়নি। সম্প্রতি আলেপ্পোয় বিমান হামলার পর একটি বিধ্বস্ত ভবন থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এরপর তার ভিডিও আর ছবি প্রকাশ করে সিরিয়ার বিদ্রোহীরা। আলেপ্পোতে কয়েক সপ্তাহ ধরে চলা সিরিয়ান বিদ্রোহী আর সরকারি বাহিনীর মধ্যে লড়াই ও সহিংসতায় কয়েকশ মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে। বিদ্রোহীদের একটি মিডিয়া সেন্টার জানিয়েছে, বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর কোটের্জি জেলার একটি ভবনে রাশ
বঙ্গবন্ধু নেই, তাই দেশে যাননি বিয়াল্লিশ বছর

বঙ্গবন্ধু নেই, তাই দেশে যাননি বিয়াল্লিশ বছর

সৈয়দ আনাস পাশা রোমানিয়ার রাজধানী সোফিয়া থেকে গত ৯ই আগস্ট ফোন করলেন খোন্দকার রফিকুল ইসলাম। কান্নাজড়িত কন্ঠে বললেন, আগস্ট মাস,তাই বারবার বঙ্গবন্ধু ও শেখ জামালের কথা মনে পড়ছে। কষ্ট শেয়ার করার জন্যেই আপনাকে টেলিফোন করলাম। বঙ্গবন্ধু ও শেখ জামালকে ঘিরে আবারও তাঁর সেই স্মৃতি রোমন্থন করলেন টেলিফোনে দীর্ঘক্ষন। ১৯৭৪ সালে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেয়া প্লেন টিকেট দিয়ে স্কলারশীপ নিয়ে তিনি এসেছিলেন রোমানিয়ায়। আর ফিরে যাননি দেশে। দেশ ছাড়ার মাত্র একবছরের মধ্যেই ঘাতকরা যে তাঁর ‘বাপু’ কে ছিনিয়ে নেবে এটি কখনও ভাবতেই পারেননি বর্তমানে বুলগেরিয়ার রাজধানী সোফিয়ায় বসবাসরত সোফিয়া ন্যাশনাল হার্ট হসপিটালের কার্ডিও থরাসিস সার্জন (CARDIO_THORACIC SURGEON) খোন্দকার রফিকুল ইসলাম। যে দেশ ঘাতকের হাত থেকে তাঁর জন্মদাতাকে রক্ষা করতে পারেনা, সেই দেশের প্রতি প্রচন্ড অভিমানী হয়ে ওঠেন তিনি। যেখানে তাঁর বাপু
লৌহমানবী ইরোম শর্মিলা চনু : কী হতে পারে তাঁর ভবিষ্যৎ

লৌহমানবী ইরোম শর্মিলা চনু : কী হতে পারে তাঁর ভবিষ্যৎ

এ কে শেরাম মণিপুরের ইরোম শর্মিলা চনু আজ আর কেবল একটি নাম নয়–একটি প্রতিষ্ঠান। মণিপুর থেকে ‘আফস্পা’ নামের একটি কালো আইন প্রত্যাহারের দাবিতে প্রায় ১৬ বৎসর ধরে একটানা অনশন করে সারা বিশ্বেই একটি অনন্য ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন তিনি। বলে রাখা ভাল যে, ’আফস্পা’ এমন এক আইন যার ক্ষমতাবলে সামরিক ও আধাসামরিক বাহিনী বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্দেহে যে কাউকে যে কোনো সময় আটক করে গুম করে ফেলতে পারে, খুন করতে পারে; তার জন্যে তাদের কারো কাছে জবাবদিহি করতে হয় না। আমরা জানি, মণিপুরের মালোম এলাকায় এক সকালে ভারতের আধাসামরিক বাহিনী আসাম রাইফেলসের জওয়ানরা একটি বাস স্ট্যাণ্ডে দাঁড়িয়ে থাকা শিশু-নারীসহ নিরীহ ১০ জন মানুষকে গুলি করে হত্যা করে। আর তারই প্রতিবাদে এক তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে ২৭ বছরের মানবাধিকারকর্মী শর্মিলা অবিলম্বে ‘আফস্পা’ প্রত্যাহারের দাবিতে স্বেচ্ছায় আমরণ অনশন শুরু করে। মনে রাখা দরকার, শর্মিলা একজন কবি। সেকারণেই হয়তো
ইংল্যান্ডে এক টুকরো বাংলাদেশ

ইংল্যান্ডে এক টুকরো বাংলাদেশ

ইংল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মাহমুদুল হক মনির সম্মানে ‘মনি কর্ণার’ স্থাপন করা হয়েছে। মনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) এর সদস্য। তিনি বর্তমানে শিভেনিং স্কলারশিপে ইউনিভার্সিটি অব সাসেক্সে ‘গভার্নেন্স ও উন্নয়ন’ বিষয়ে মাস্টার্স করছেন। তিনি একজন শৌখিন আলোকচিত্রী ও চলচ্চিত্রকার। তাঁর তিনটি বিশেষ অর্জনকে সম্মান দেখিয়ে ৪ আগস্ট, বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ লাইব্রেরি ফর ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ এ কর্ণার উদ্বোধন করা হয়। উন্নয়ন বিষয়ক পৃথিবীর সবচেয়ে বড় এই লাইব্রেরি যা ইন্সটিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজে অবস্থিত। ‘মনি কর্ণার’ এ মনির কিছু বাঁধাই করা ছবিসহ দুটি এ্যালবামে এক বছরে যুক্তরাজ্যে মনির তোলা ২৮০ টি আলোকচিত্র স্থান পেয়েছে। সাথে রয়েছে বাংলাদেশের পতাকা। এছাড়া পুরো লাইব্রেরি জুড়ে আরও ১৭ টি ছবি টাঙ্গানো হয়েছে দর্শনার্থীদের সুবিধার জন্য। এ বছরের শুরুতে যুক্তরাজ্য সরকার পাবলিক লাইব
অনুভূতিহীন রোবট সন্তানরাই জঙ্গিবাদে পা দিচ্ছে

অনুভূতিহীন রোবট সন্তানরাই জঙ্গিবাদে পা দিচ্ছে

রাহিমা বেগম একটা দামী মোবাইল, একটা ট্যাব, ল্যাপটপ, লাখ টাকা খরচ করে সাউন্ড সিস্টেম। ছেলেমেয়ের শোবার ঘরে লাখ লাখ টাকা খরচ করে বাড়তি ডেকোরেশন করে দিন অসুবিধা নেই। তবে সুযোগ থাকলে কিনে দিন গরু, ছাগল বা গৃহপালিত অন্য কোন পশু। প্রাণীকে যথাসময়ে খাবার দেওয়া, পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, নিয়ম করে গোসল করাতে বলুন। তাহলে প্রাণীটির সাথে একটা ভালো বন্ধুত্ব গড়ে উঠবে আপনার সন্তানের। সেই সাথে মানবিকতার ভিতরে শক্তিশালী হয়ে উঠবে মানবিক সত্ত্বাটাও। প্রাণীগুলোকে ভালোবাসতে গিয়ে, শৃংঙ্খলা শেখাতে গিয়ে আপনার ছেলেমেয়ের মধ্যে আবেগ-ভালোবাসা জন্মাবে। তারা সুশৃংঙ্খল হয়ে উঠবে, তাদের অনুভূতিগুলো গাঢ় হবে। সম্পর্কটা এমন হবে সামান্য কষ্টে প্রাণীটি যতটুকু ব্যথা পাবে তার চেয়ে অনেক বেশি কষ্ট পাবে তাকে দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা আপনার ছেলেমেয়ে। প্রাণীগুলোর চোখে পানি আসলে আপনার সন্তানদের চোখেও পানি আসবে। প্রাণীগুলো উচ্ছৃঙ্খল আচরণ কর
তারুণ্যের এপিঠ ওপিঠ

তারুণ্যের এপিঠ ওপিঠ

মুহম্মদ জাফর ইকবাল জুলাই মাসের ১ তারিখ আমি দেশের বাইরে। বাংলাদেশের ইতিহাসে নৃশংস একটি হত্যাকাণ্ডের প্রক্রিয়া যখন শুরু হয়েছে আমি তার কিছুক্ষণের মাঝে খবরটি পেয়ে গেছি। শুধু আমি নাই সারা পৃথিবীর প্রায় সব মানুষ খবরটি জেনে গিয়েছে। সিএনএন যেরকম উৎসাহ, উদ্দীপনা এবং উত্তেজনার সাথে সেই খবরটি প্রচার করেছে আমি আমার জীবনে সেরকমভাবে অন্য কোনো খবরকে প্রচার হতে দেখিনি। গুলশানের সেই অভিশপ্ত ক্যাফের ভিতরে কী ঘটেছে সেটি সংবাদ মাধ্যমে এসেছে রাত পোহানোর পর কিন্তু ভাসাভাসা ভাবে সবকিছুই সবাই জেনে গেছে সেই রাতেই। আমিও জেনেছি এবং গভীর বিষাদে ডুবে যাওয়া বলতে যা বোঝায় বহুদিন পর আমি সেটি অনুভব করেছি। যন্ত্রের মত সবকিছু করে গেছি কিন্তু এক মুহূর্তের জন্যেও মনের ভেতর থেকে সেই কষ্টটুকু সরাতে পারিনি। এতোজন বিদেশী মানুষকে আমাদের দেশের মাটিতে এরকম নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়েছে আমরা তাদের আপনজনের কাছে কীভাবে মুখ তুলে তাকাব?
‘আফস্পা’ অত্যাচার : সেনার আচরণে রাশ সুপ্রিম কোর্টের

‘আফস্পা’ অত্যাচার : সেনার আচরণে রাশ সুপ্রিম কোর্টের

নাকে ‘রাইলস টিউব’, দেড় দশক ধরে অনশন চালিয়ে আসা ইরম শর্মিলা চানুর এই ছবিটা গোটা দুনিয়া চেনে। সাদা কাপড়ে ‘ইন্ডিয়ান আর্মি রেপ আস’ লিখে কাংলা দুর্গের সামনে মণিপুরের মায়েদের নগ্ন প্রতিবাদের ছবিটাও ১২ বছরের পুরনো। কিন্তু এত কিছুতেও মণিপুরে জওয়ানদের অত্যাচারী আচরণে রাশ টানা যায়নি বলে অভিযোগ উঠেছে বারবার। একই ভাবে উত্তর-পূর্ব ভারতের বিস্তীর্ণ অংশ এবং জম্মু-কাশ্মীরেও সেনার আচরণ বদলায়নি বলে সরব হয়েছে মানবাধিকার সংগঠনগুলি। কারণ তাদের জন্য আছে সামরিক বাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আইন বা ‘আফস্পা’। যে আইনকে কাজে লাগিয়ে জঙ্গি সন্দেহে ভুয়ো সংঘর্ষ বা এনকাউন্টারের নামে বহু নিরীহ যুবক-যুবতীকে মেরে ফেলার অভিযোগ বারবার উঠেছে সেনার বিরুদ্ধে। সে সবের কোনও তদন্ত বা বিচার হয়নি। সেনার ঢাল হয়ে দাঁড়িয়েছে সেই আফস্পা। অবশেষে আজ শীর্ষ আদালত জানাল, সেনাবাহিনী বা আধা সেনা কোনও ভাবেই অতিরিক্ত বলপ্রয়োগ বা প্রতিশোধমূলক আচরণ করতে
ঘুমোও ইশরাত আপা

ঘুমোও ইশরাত আপা

  জয়া আহসান নিউ ইয়র্কের ম্যাডিসন স্কোয়ার গার্ডেনে তখন গমগম করছে আমার দেশের জাতীয়-সঙ্গীত। আমি সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে ঠোঁট মেলাচ্ছি। তখনও অনেকেই সে-ভাবে জানেন না, ঢাকায় কী চলছে। আমাকে দেখেও বাইরে থেকে হয়তো কিছু বোঝার জো নেই। কিন্তু আমার ভেতরটা ফালা-ফালা হয়ে যাচ্ছে। আমি যে তত ক্ষণে খবর পেয়েছি, গুলশনের বেকারিতে ঢুকে জঙ্গিরা সবাইকে জিম্মি করে রেখেছে! নর্থ অ্যাটলান্টিক বেঙ্গলি কনফারেন্স-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ছিল শুক্রবার। মার্কিন সময় সন্ধে ছ’টা-সাড়ে ছ’টা হবে। তার মানে ভারত-বাংলাদেশে তত ক্ষণে শনিবার সকাল হব-হব। আমার শরীরটা কেমন অসাড় মনে হচ্ছে। সবুজ পতাকার উদিত লাল সূর্যের মধ্যে কেমন যেন কালো-কালো দাগ দেখছি। গান হচ্ছে, ‘...মা তোর বদনখানি মলিন হলে আমি নয়নজলে ভাসি’...আর থাকতে পারলাম না। আমারও দু’চোখ বেয়ে পদ্মা-মেঘনা-যমুনা উপচে পড়ল। কাজের জন্য এখন কলকাতা, ঢাকা— দু’টোই আমার ঘর-বাড়ি। কিন্তু ম