শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি, দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বরখাস্ত | | Women Words

শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি, দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক বরখাস্ত

উইমেন ওয়ার্ডস ডেস্ক :: ছাত্রীকে যৌন হয়রানি ও গৃহকর্মীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক তৈরির দায়ে দিনাজপুরের হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) বায়োকেমিস্ট্রি ও মলিকুলার বায়োলজি বিভাগের শিক্ষক রমজান আলীকে বরখাস্ত করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের রিজেন্ট বোর্ড।

আজ ১৫ ফেব্রুয়ারি শনিবার বোর্ডের ৪৯তম সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের  নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ২০১৭ সালের ১৮ জুলাই হাবিপ্রবি প্রশাসনের কাছে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন এক ছাত্রী। অভিযোগে উল্লেক করা হয়, বাড়িতে স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে রমজান আলী ওই ছাত্রীকে বিভিন্ন অজুহাতে বাসায় যাওয়ার জন্য চাপ দেন। বাহিরে হোটেলে থাকার চাপ দেন।এতে রাজি না হলে পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকি দেন রমজান। ওই ছাত্রী লিখিত অভিযোগের পাশাপাশি মোবাইল কথোপকথনের রেকর্ডও জমা দেন প্রশাসনের কাছে।

এছাড়া পরের বছর ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি রমজান আলীর স্ত্রী যৌতুক ও ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযগে দেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনে। এ ঘটনায় উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় প্রশাসন গঠিত কমিটি তদন্ত করে। তদন্তকালে কমিটির সদস্যরা ছাত্রী ও তার স্ত্রীর অভিযোগের সত্যতা পান। শুধু তাই নয়, রমজান আলীর বিরুদ্ধে গৃহকর্মীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনেরও প্রমাণ পাওয়া যায়। পরে ২০১৮ সালের ২ জুলাই কমিটির সদস্যরা প্রতিবেদন জমা দেন। একই সঙ্গে রমজান আলীকে চূড়ান্ত বরখাস্তের সুপারিশ করেন।

রমজান আলীকে চূড়ান্ত বরখাস্তের বিষয়ে মহিলা পরিষদের সভাপতি কানিজ রহমান বলেন, ‘রমজান আলীর মতো একজন শিক্ষককে বরখাস্তের মধ্যি দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি কলঙ্কমুক্ত হলো।’