সমকামি বাঙালী ও মার্কিন তরুণীর বিয়ে - Women Words

সমকামি বাঙালী ও মার্কিন তরুণীর বিয়ে

উইমেন ওয়ার্ডস ডেস্ক :: গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে বিয়ে করা দুই সমকামি নারীর একজন বাঙালি বংশোদ্ভুত বলে জানা গেছে। যার নাম ইয়াশরিকা জাহরা হক। অপরজন জন্মসূত্রে মার্কিন নাগরিক এলিকা রুথ কুকলি (৩১)। তাদের বিয়ে আমেরিকায় হলেও আয়োজন ছিল বাঙালি ঐতিহ্যে। ২০১৯ সালের ৬ জুন তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

ইয়াশরিকার বাবা ইয়ামিন হক, মা ইয়াসমিন হক। ইয়াশরিকা জাহরা হক ওয়াশিংটনের জর্জটাউন ইউনিভার্সিটি থেকে পড়াশোনা করেছেন। তারপর ইলিনয়েসের নর্থ ওয়েস্টার্ণ ইউনিভার্সিটি থেকে আইন বিষয়ে ডিগ্রি নিয়েছেন। তিনি বর্তমানে একটি ল ফার্মে অ্যাসোসিয়েট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এই দুই তরুণীর প্রথমবার দেখা হয় ২০১৫ সালে একটি এলজিবিটি মার্চে। সেখান থেকেই সম্পর্ক ধীরে ধীরে এগুতে থাকে। নিজেদের প্রেমের কথা জানাতে গিয়ে ইয়াশরিকা বলেন, কুকলিকে প্রথম দেখার পর কেমন লেগেছিল তা বলে বুঝাতে পারব না। তখন সে একা ছিল। আমিও তার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছিলাম। পরেরবার দেখা হবার পর আমাদের কথা হয়। কয়েকমাস পর আবার দেখায় হয় এক বন্ধুর পার্টিতে।

কুকলি বলেন, আমি ততদিনে বুঝতে পেরেছিলাম যে আমাকে ইয়াশরিকা পছন্দ করে। সেদিন আমরা সারারাত একসঙ্গে গল্প করেছিলাম। কুকলি আরো বলেন, সে খুবই মায়াবী আর যত্নশীল একটি মেয়ে। যা-ই হোক না কেন সে আমার পাশেই থাকবে।

ইয়াশরিকা বলেন, এই বিয়ের মাধ্যমে আমার তো মনে হয় যে এতদিনে দুটো চুম্বক জোড়া লাগল। আমি খুবই খুশি।

তাদের বিয়ের পুরোটাই ছিল বাঙ্গালীত্বে ভরা। ঐতিহ্য অনুযায়ী ইয়াশরিকা হকের পরনে ছিল লাল টুকটুকে বেনারসি। দুহাতের কনুই থেকে হাতের তালু পর্যন্ত মেহেদির আল্পনা। এলিকা রুথের পরনে ছিল অফ হোয়াইট কালার শেরওয়ানি, লাল পাজামা। দুই হাতে মেহদির নকশা। গলায় মুক্তার মালা। এলিকা পেশাগতভাবে একজন অডিওলজিস্ট।

তাদের বিয়ে নিয়ে নিউইয়র্ক টাইমসে একটি বিশেষ কলাম ছাপা হয়েছে। নিউইয়র্ক টাইমসে উল্লেখ করা ছিল, এই বিয়েতে আনুমানিক ৫ লাখ ডলার ব্যয় হয়েছিল।