নভেম্বর ২৭, ২০১৯ - Women Words

Day: নভেম্বর ২৭, ২০১৯

পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে গৃহিণীদের মানববন্ধন

পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে গৃহিণীদের মানববন্ধন

পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সিলেটে আন্দোলনে নেমেছেন গৃহিণীরা। আজ বুধবার নগরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন তারা। এসময় আগামী ১০ দিন পেঁয়াজ বর্জনের ঘোষণা দেন গৃহিণীরা। বিকেল পাঁচটার দিকে নগরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন সাধারণ গৃহিণীরা। এসময় তারা, ‘১০ দিন পেয়াজ খাবো না, ১০ দিন পেয়াজ কিনব না’, ‘পেঁয়াজ ছাড়াও রান্না হয়’, ‘পেয়াজ ছাড়া রান্না করুন’ নানা স্লোগান সম্বলিত প্লেকার্ড নিয়ে প্রতিবাদ জানান। এসময় ১০ দিন পেঁয়াজ না খাওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পাশাপাশি দ্রুত এই সংকট নিরসনে সরকারের কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান। মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী নারীরা বলেন, ‘বর্তমান সময়ে পেঁয়াজের উর্ধ্বমূল্যে আমরা শঙ্কিত। এমন সংকটময় মুহূর্তে গৃহিনীদেরও সচেতন হওয়া উচিত।’ পেঁয়াজ ছাড়াও সুস্বাদু খাবার রান্না করা যায় মন্তব্য করে তারা বলেন, ‘সকলে একযোগে কয়েকদি
ফেসবুকে প্রেম : প্রেমিকার গয়না নিয়ে চম্পট

ফেসবুকে প্রেম : প্রেমিকার গয়না নিয়ে চম্পট

পুলিশ পরিচয়ে ছুটিয়ে প্রেম করছেন। লেকটাউনের সেই নারীর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগের পর যে দিন প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়ে যান প্রেমিক, সেই দিন মাঝপথে ওই নারীকে রেখে তাঁর গয়না নিয়ে চম্পট দেয় সে। সৌমিত্র মণ্ডল নামে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার। পুলিশের জেরার মুখে উঠে এসেছে দুলাল হালদার নামে তার এক সঙ্গীর নাম। তাকেও পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। উদ্ধার হয়েছে খোয়া যাওয়া জিনিসপত্রও। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত আগস্ট মাসে ফেসবুকে লেকটাউনের বাসিন্দা এক গৃহবধূর সঙ্গে আলাপ হয় সন্দেশখালির বাসিন্দা সৌমিত্র মণ্ডলের। নিজেকে পুলিশ বলে পরিচয় দেয় সৌমিত্র। অন্য দিকে, ওই নারীর একটি মেয়ে রয়েছে। বন্ধুত্ব থেকে ধীরে ধীরে দু’জনের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে দু’জনের। এরপর গত অক্টোবর মাসে ওই নারীকে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেন সৌমিত্র। তাতে রাজিও হয়ে যান তিনি। এরপর শুরু হয় পালানোর ছক কষা। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে
হুসনাকে সেইফহোমে নেওয়া হয়েছে

হুসনাকে সেইফহোমে নেওয়া হয়েছে

ভিডিও বার্তায় সৌদি আরব থেকে দেশে আসতে আকুতি জানানোর পর নারী গৃহকর্মী হুসনাকে পুলিশের নজরদারিতে সেইফহোমে নেয়া হয়েছে। সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল শ্রম কল্যাণ উইং এর প্রথম সচিব কেএম সালাউদ্দিনের সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি আরবে কর্মরত নারী গৃহকর্মী হুসনাকে উদ্ধারের জন্য কনসুলেট তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়। নাজরান পুলিশকে ঘটনাটি অবহিত করা হয়েছে। কনস্যুলেটের প্রতিনিধিও সৌদি এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। হুসনা পুলিশের নজরদারিতে সেইফহোমে আছেন বলে ওই এজেন্সি জানিয়েছে। কনস্যুলেট প্রতিনিধিও হুসনার সঙ্গে কথা বলেছেন। তাকে দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গৃহকর্মী হুসনা আক্তার (২৪) হবিগঞ্জের বাড়ি আজমিরীগঞ্জ উপজেলার আনন্দপুর গ্রামে। গৃহকর্মীর কাজ নিয়ে ৭ নভেম্বর ‘আরব ওয়ার্ল্ড ডিস্টিভিউশন’ নামের একটি এ
‘ডান্স বারে’ কাজের নামে বাংলাদেশ থেকে নারীরা যেভাবে পাচার হচ্ছেন

‘ডান্স বারে’ কাজের নামে বাংলাদেশ থেকে নারীরা যেভাবে পাচার হচ্ছেন

ঢাকার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নাচ করতেন পারুল আকতার (ছদ্মনাম)। দরিদ্র পরিবারের সন্তান পারুল আক্তার অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়ার পর জীবিকার তাগিদে নাচকে পেশা হিসেবে বেছে নেন। কয়েক বছর আগে এক অনুষ্ঠানে নাচতে গেলে তার সঙ্গে দেখা হয় এক ব্যক্তির। সেই ব্যক্তি দুবাইয়ের একটি ডান্স বারের এজেন্ট। পারুল আক্তার বিবিসি বাংলাকে বলেন, ‘ওই লোক আমাকে বলছে, তুমি তো ভালোই নাচ। দুবাই যাইবা? ওইখানে স্টেজে নাচলে মাসে ৫০ হাজার টাকা বেতন পাইবা। টাকার কথা শুনে আমি রাজি হইলাম।’ দুবাই যেতে পারুল আক্তারের কোনো টাকা খরচ হয়নি। কিন্তু এই বিষয়টিও তার মনে কোনো সন্দেহ তৈরি করেনি। দুবাই গিয়ে ভিন্ন এক বাস্তবতার মুখোমুখি হতে হয় পারুলকে। তিনি বলেন, ‘এখান থেকে ডান্সের কথা বইলা নিয়া যাইত। পরে ওইখানে ছেলেদের রুমে পাঠানো হয়। ওখানে পরিস্থিতির শিকার।’ পারুল আক্তারের মতো অনেক মেয়েকে এভাবেই দুবাইয়ের ডান্সবারে চাকরি দেওয়ার ন