প্রেমের টানে বাড়ি ছাড়া মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা - Women Words

প্রেমের টানে বাড়ি ছাড়া মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা

যশোর বাঘারপাড়া উপজেলার ভাঙ্গুড়া এলাকা থেকে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাত কিশোরীর পরিচয় মিলেছে। নিহত তরুণীর নাম জয়নব খাতুন (১৩)। সে নড়াইল সদর উপজেলার বিছালী গ্রামের জিয়াউর রহমান শেখের মেয়ে ও স্থানীয় খাদিজা-তুল কোবরা মহিলা কওমী মাদ্রাসার পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। প্রেমের টানে বাড়ি ছেড়ে গিয়ে জয়নব ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় মঙ্গলবার যশোর সদর উপজেলার চাঁনপাড়া গ্রামের মজিবুল ইসলামকে (২৫) আসামি করে বাঘারপাড়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন নিহতের বাবা। এই ঘটনায় আসামিকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

গত সোমবার বিকেলে যশোর-নড়াইল মহাসড়কের দক্ষিণে ভাঙ্গুড়া গ্রামের রউফ উদ্দিনের মাছের ঘের লাশটি উদ্ধার করা হয়।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, বাদী জিয়াউর শেখের বড় জামাই যশোর সদর উপজেলার চাঁনপাড়া গ্রামের দারুল নাঈম জামে মসজিদের ইমাম। মসজিদের পাশের ভবনে স্ত্রীকে নিয়ে তিনি বসবাস করেন। সেই সূত্রে জয়নব মাঝে মধ্যে ভগ্নিপতির বাসায় আসতো। প্রায় এক মাস আগে চাঁনপাড়া গ্রামের মজিবুল ইসলামের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত রবিবার বিকেল চারটার দিকে জয়নব গোপনে তার জামা কাপড়, নগদ চার হাজার টাকা এবং একটি মোবাইল ফোন নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এরপর সে আর বাড়ি ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। রবিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে মজিবুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি কল রিসিভ করেন। জয়নবের কথা জানতে চাইলে তিনি কল কেটে দেন। এরপর বেশ কয়েকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

জয়নবের চাচা আজানুর রহমান শেখ বলেন, প্রেমের সম্পর্কের কারণে জয়নব রবিবার বিকেলে গোপনে মজিবুল ইসলামের সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরদিন সোমবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে জয়নবের মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়েছি। মজিবুল ইসলাম তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মাছের ঘেরে ফেলে দেয়।

বাঘারপাড়া থানার উপপরিদর্শক আব্দুস সাত্তার জোয়ার্দার বলেন, আমরা ধারণা করছি রবিবার সন্ধ্যার পর ধর্ষণ করা হয়েছে। এরপর শ্বাসরোধে হত্যা করে পানিতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এলে মৃত্যুর রহস্য জানা যাবে।

বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দীন বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার অভিযোগে মামলা হয়েছে। আসামি গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।