সাভারে পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণ - Women Words

সাভারে পোশাক শ্রমিককে ধর্ষণ

ঢাকার সাভারে ১৫ বছর বয়সী এক পোশাক শ্রমিক ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এঘটনার পর থেকে ধর্ষক ও তার পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে পালিয়েছে।  শুক্রবার রাতে সাভার সদর ইউনিয়নের চাঁপাইন তালতলা মহল্লার জামাল মিয়ার ভাড়া নেয়া বাড়িতে এ ধর্ষনের ঘটনা ঘটে।

ধর্ষক তারা মিয়া (৫০) চাঁপাইন এলাকার রজব উদ্দিনের পুত্র। সে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী।

এদিকে  ঘটনার সুষ্ঠ বিচারের আশ্বাসে ধর্ষিতা ও তার পরিবারের সদস্যদের ডেকে নিয়ে ‘ধর্ষিতা পাগল’ বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা।

ধর্ষনের শিকার কিশোরীর চাচা হাফিজুর মন্ডল জানান, ভাবী মঞ্জুয়ারার সাথে তারা মিয়ার অবৈধ সর্ম্পক রয়েছে। জানাজানি হওয়ায় গত এক মাস আগে ভাই আহালু মন্ডল ভাবীকে ডির্ভোস দেন।

তিনি আরও বলেন, রাতে কিশোরী ভাতিজি একাই ঘরে ছিল। পরে কৌশলে তারা মিয়া ঘরে ঢুকে মুখ চেপে ধরে ধর্ষন করে পালিয়ে যায়।

শনিবার সকালে বিচারের আশ্বাস দিয়ে সাভার সদর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন ধর্ষিতা কিশোরী ও তার চাচাকে ডেকে নিয়ে হুমকি-ধামকি দেন এবং কিশোরীকে পাগল বলে আক্ষায়িত করেন।

এলাকাবাসী জানায়, ধর্ষক তারা মিয়া আওয়ামী লীগ কর্মী এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরুল আমিন রানার অনুসারী।

অভিযোগ প্রসঙ্গে আওয়ামীলীগ নেতা নুরুল আমিন রানা বলেন, আমি শুনে তাদের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। তারা বলছে মামলা করবে তাই আমি আর কিছু বলিনাই। তবে তাদের হুমকি ও ধর্ষিতাকে পাগল বলার কথা তিনি অস্বীকার করেন।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাকারিয়া হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মামলার প্রক্রিয়া চলছে।