অক্টোবর ১১, ২০১৯ - Women Words

Day: অক্টোবর ১১, ২০১৯

সাফ ফুটবলে ফাইনালের পথে বাংলাদেশের মেয়েরা

সাফ ফুটবলে ফাইনালের পথে বাংলাদেশের মেয়েরা

প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক ভুটানকে ২-০ গোলে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় পেল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ মেয়েরা। শুক্রবার নেপালকে ২-০ গোলে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে এক পা দিয়ে রাখল লাল-সবুজের কিশোরীরা। মাত্র চার দল অংশ নিয়েছে আসরে। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে হচ্ছে লড়াই। বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটানের সঙ্গে টুর্নামেন্টের আরেক দল ভারত। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় স্বাগতিক ভুটানের মুখোমুখি হবে ভারতের মেয়েরা। সেই ম্যাচে ভুটান হেরে গেলে এক ম্যাচ হাতে রেখেই ফাইনালে চলে যাবে টানা দুই জয় তুলে উড়তে থাকা বাংলাদেশ। ভুটানের চাংলিমিথাং স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১২ মিনিটেই লিড নেয় বাংলাদেশ। প্রায় মাঝমাঠ থেকে দারুণ ক্ষিপ্র এক দৌড়ে একক নৈপুণ্যে চার নেপালি ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে গোল আদায় করে নেন আক্তার রিপা। ম্যাচের ২৪ মিনিটে নিজেদের ডি-বক্সে হ্যান্ডবল করে বাংলাদেশকে পেনাল্টি উপহার দেয় নেপাল। স্পটকিক থেকে পরের মি
অন্ধ নারীরাই শনাক্ত করছেন স্তন ক্যান্সার

অন্ধ নারীরাই শনাক্ত করছেন স্তন ক্যান্সার

কোন নারীর স্তন ক্যান্সার হয়েছে কিনা কলম্বিয়াতে সেটা অন্ধ ও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা পরীক্ষা করে দেখছেন। এই প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে 'যে হাত জীবন বাঁচাতে পারে।' অন্ধ ব্যক্তির হাতের স্পর্শ অত্যন্ত সংবেদনশীল হওয়ার কারণে এই ক্যান্সার শনাক্ত করার কাজে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। সারা বিশ্বে নারীরা এই ক্যান্সারেই সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন এবং এতে অনেকের মৃত্যুও হচ্ছে। স্তন ক্যান্সার থেকে জীবন রক্ষার একটি উপায় হলো যতো শীঘ্র সম্ভব এটিকে শনাক্ত করা। আর এই কাজেই কলম্বিয়াতে কাজে লাগানো হয়েছে অন্ধ ব্যক্তিদের। তাদেরই একজন লিইডি গার্সিয়া বলছেন, "আমার কাছে হাতই হলো আমার চোখ। এই হাত দুটো দিয়েই আমি সারা বিশ্বকে অনুভব করতে পারি। বর্তমানে আমি যা কিছু করছি, এই হাতদুটো ছাড়া সেসব করা অসম্ভব ছিল।" লিইডি গার্সিয়া একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। স্তন ক্যান্সারের উপসর্গ শনাক্ত করার কাজে তাক
‘কিছু হলেই এই দেশে থাকতে চাই না’ শ্রেণীর উদ্দেশ্যে শবনম ফারিয়ার পরামর্শ

‘কিছু হলেই এই দেশে থাকতে চাই না’ শ্রেণীর উদ্দেশ্যে শবনম ফারিয়ার পরামর্শ

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি শ্রেণী রয়েছে যারা দেশের যে কোনো সমস্যার সময়ে ফেসবুকে লিখেন এই 'দেশে আর থাকবো না।' এই দেশে না থাকতে চাওয়া শ্রেণীর উদ্দেশ্যে পরামর্শ জানিয়েছেন অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে লিখেছেন, একদল মানুষ আছে, কোনও একটা ঘটনা ঘটলেই স্টেটাস মারে, “এই দেশে আর থাকতে চাই না” , “এই দেশের ভবিষ্যত নাই” ব্লা, ব্লা.... তিনি লিখেছেন, 'এজ ইফ, সব দেশের দোষ, দেশ শিখায় দিছে তুমি বদ হও, চুরি বাটপারি করো, খুন খারাপি করো! আর দুনিয়ার কোন দেশে খারাপ কোন ঘটনা ঘটে না? একটু গুগল করে বিভিন্ন দেশের ক্রাইম রেট একটু দেইখেন তো! বাই দা ওয়ে, IELTS এ ৮ উঠায় তারপর স্টাটাস মাইরেন এই দেশে থাকতে চান না!' ফারিয়া বলেন, 'তার আগে অনর্থক দেশকে ব্লেইম না করে দুই চারটা ভাল কাজ করার ট্রাই করেন! ২টা বাচ্চার পড়াশুনার দায়িত্ব নেন, ২টা গাছ লাগান, বাসার চারপাশ পরিস্কার রাখেন, ছেলে মেয়েদের নৈতিক শিক্ষা দেন...