পাহাড়ের গহীন জঙ্গলে দুই নারীকে ‘গণধর্ষণ’ - Women Words

পাহাড়ের গহীন জঙ্গলে দুই নারীকে ‘গণধর্ষণ’

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার এক পাহাড়ের গহীন জঙ্গলে নিয়ে দুই নারীকে ‘গণধর্ষণের’ অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাতে উপজেলার দক্ষিণজুম গহীন পাহাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রাতেই ঘটনাস্থল থেকে ভুক্তভোগীদের উদ্ধার ও আলীম উদ্দিন বৈদ্য নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এর আগে তাকেসহ বেশ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগীদের পরিবার।

আলীমের বাবার নাম আলী হোসেন। তারা উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবুনিয়া দক্ষিণজুম এলাকার বাসিন্দা।

গণধর্ষণের শিকার ভুক্তভোগী এক নারীর স্বামী অভিযোগ করে বলেন, আলীম উদ্দিন এলাকায় ‘ভণ্ড বৈদ্য’ হিসেবে পরিচিত। তার একটি সংঘবদ্ধ দল রয়েছে। গতকাল রাতে সেই দল নিয়ে অস্ত্রসহ তাদের বাড়িতে হানা দেয় আলীম। ঘর থেকে পুরুষদের বের করে গাছের সঙ্গে বেঁধে ফেলে দলটি। পরে তার বোন ও স্ত্রীকে অপহরণ করে পাহাড়ের দিকে চলে যায় তারা।

তিনি আরও জানান, স্থানীয়রা টের পেয়ে গাছে বাঁধা অবস্থা থেকে তাদের উদ্ধার করে। পরে পেকুয়া থানায় গিয়ে ঘটনা জানালে পুলিশ মামলা নেয়।

স্ত্রী ও বোনের বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, আলীম ও তার দলের সদস্যরা দুজনকে গণধর্ষণ করে জঙ্গলে ফেলে চলে যায়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, অভিযোগ পেয়েই তারা ঘটনাস্থলে যান। পরে সেখান থেকে ভুক্তভোগীদের উদ্ধার করেন। গহীন পাহাড়ে পুলিশের কয়েকটি টিম দিয়ে অভিযান পরিচালনাও করান এই কর্মকর্তা। পরে আলীম উদ্দিন বৈদ্যকে সেখান থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও জানান, ভুক্তভোগীদের আজ বৃহস্পতিবার কক্সবাজার সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল আজম জানান, এ ঘটনায় আলীমসহ বেশ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। গুরুত্বসহকারে মামলাটি দেখা হচ্ছে। আলীমের অন্যান্য সঙ্গীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে।