অবশেষে জামিন পেলেন মিন্নি - Women Words

অবশেষে জামিন পেলেন মিন্নি

বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে শর্তসাপেক্ষে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ বিষয়ে জারি করা রুল মঞ্জুর করে এ রায় দেন।

আদালত বলেছে, জামিনে থাকা অবস্থায় মিন্নি তার বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরের জিম্মায় থাকবেন। আর এই সময়ে মিন্নি গণমাধ্যমের সামনে কোনো কথা বলতে পারবেন না।

মিন্নির জামিন প্রশ্নে এক সপ্তাহ আগে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাই কোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই রায় দেয়।

মেয়ের জামিন হওয়ায় আদালতে উপস্থিত মোজাম্মেল হোসেন কিশোর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় সাংবাদিকদের বলেন, “ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে, চক্রান্তেরও অবসান হবে।”

গতকাল বুধবার তার জামিন প্রশ্নে রুলের ওপর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার রায়ের জন্য এদিন ধার্য করা হয়।

বুধবার আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারোয়ার হোসাইন বাপ্পী।

এ সময় আদালত কক্ষে থাকা জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মনসরুল হক চৌধুরী জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন।

শুনানিতে আইনজীবী জেড আই খান পান্না বলেন, গতকাল শুনানির শুরুতে মিন্নির আইনজীবী জেড আই খান পান্না বলেন, ‘মিন্নিকে ১৬ জুলাই সকালে পুলিশ লাইনে ডেকে নেওয়া হয়। এরপর রাতে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ১৭ জুলাই আদালতে হাজির করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করা হয়। আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এই রিমান্ড আদেশেই বলা হয়েছে, আদালতে আসামিপক্ষে কোনো আইনজীবী নেই। আসামি বলেছেন, তিনি (মিন্নি) হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত নন। এর দুই দিন পর ১৯ জুলাই তাঁর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়া হয়।’

তিনি বলেন, ‘মিন্নির তিন মাস আগে বিয়ে হয়। তাঁর স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি একজন নারী। রাষ্ট্রপক্ষ বা পুলিশ বলছে মিন্নি পরিকল্পনাকারী। তাদের এই বক্তব্য সঠিক যদি ধরেও নিই, তবে সেটা বিচারে প্রমাণিত হবে। তখন তাঁর সাজা হবে কি হবে না, তা নিয়ে বলার কিছু নেই। পুলিশ বলছে, তদন্ত শেষপর্যায়ে। তাই জামিন চাচ্ছি। জামিন দিলে তদন্ত বাধাগ্রস্ত করার কোনো সুযোগ নেই।’

সূত্র: বিডিনিউজ২৪