স্কুলছাত্রীকে তিনদিন আটকে ধর্ষণ | | Women Words

স্কুলছাত্রীকে তিনদিন আটকে ধর্ষণ

হাজীগঞ্জে এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে তিনদিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার রাতে হাজীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বাদী মেয়েটির বড় ভাই। আসামি উপজেলার গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের পূর্ব ফরাজী বাড়ির সাখাওয়াত হোসেন, তার বড় ভাই মীর হোসেন এবং তাদের বাবা মো. আবদুল লতিফ।

মামলার সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে মেয়েটিকে সাখাওয়াত প্রেম নিবেদন করত। মেয়েটি ঘটনা তার পরিবারকে জানায়। অভিভাবকরা সাখাওয়াতের পরিবারসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের তা অবহিত করেন; কিন্তু কোনো প্রতিকার পাননি।

গত ২৯ জুলাই দুপুরে স্কুলে যাওয়ার পথে সাখাওয়াতসহ কয়েকজন নেশাজাতীয় দ্রব্য দিয়ে অচেতন করে মেয়েটিকে চট্টগ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে তিনদিন আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে। গত ১ আগস্ট গভীর রাতে মেয়েটিকে অচেতন অবস্থায় গ্রামের বাড়ির সামনে ফেলে দিয়ে যাওয়া হয়। গতকাল ভোরে বাড়ির লোকজন মেয়েটিকে উদ্ধার করে। এর কিছুক্ষণ পর জ্ঞান ফিরলে সে পরিবারের ঘটনাটি খুলে বলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সাখাওয়াতের সঙ্গে ওই ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু সাখাওয়াত বিবাহিত শুনে সে ওই সম্পর্ক রাখতে চায়নি। এতে ক্ষিপ্ত হয়েই হয়তো সাখাওয়াত এই কাজটি করেছে বলে তারা জানায়।

এ বিষয়ে হাজীগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন রনি জানান, মেয়েটিকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।