একযোগে ৮০০ শিক্ষার্থী ধুয়ে দিলো মায়ের পা


নিউজটি শেয়ার করুন

একযোগে ৮০০ শিক্ষার্থী তাদের মায়ের পা ধুয়ে দিলো। এ দৃশ্য পিরোজপুরের মঠবাড়ীয়া উপজেলার মিরুখালী স্কুল অ্যান্ড কলেজের। তোদের মধ্যে একজন অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী অনন্যা কুণ্ড। সে তার মায়ের পায়ে পানি ঢেলে দিচ্ছিল। মায়ের চোখে পানি।

সোমবার ওই প্রতিষ্ঠানে মাকে সম্মান জানাতে এই কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ মো. আলমগীর হোসেন।

মিরুখালী স্কুল অ্যান্ড কলেজের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠানের সবুজ চত্বরে এ ব্যতিক্রমী আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রতিষ্ঠানটির ৮০০ শিক্ষার্থী ও তাদের মায়েরা এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

সোমবার সকালে কলেজ চত্বরে জড়ো হন মায়েরা। নির্দিষ্ট আসনে বসে পড়েন তারা। তাদের সামনে হাঁটু গেড়ে বসেন সন্তানেরা। তারা এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। আবেগময় উপস্থাপনায় শুরু হয় মাকে সম্মান জানানোর এই অনুষ্ঠান। ঘোষকের আবেগময় বক্তৃতা শুনে আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন মায়েরা ও তাদের সন্তানেরা।

এসময় একযোগে মায়ের পায়ে পানি ঢেলে দেয়ার আহ্বান জানান উপস্থাপক। আহ্বান জানানোর সঙ্গে সঙ্গে মায়ের পায়ে পানি ঢেলে পা ধুয়ে দেয়া শুরু করে শিক্ষার্থীরা।

মায়েরা তখন পরম মমতায় জড়িয়ে ধরলেন সন্তানকে। পরম স্নেহে সন্তানের কপালে চুমু এঁকে দেন। পা ধোয়ানো শেষে মায়েদের মুখে মিষ্টি তুলে দেয় সন্তানেরা।

রোজি আক্তার নামের এক অভিভাবক তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এটা একটা অভূতপূর্ব ব্যাপার। আমার সন্তান যখন পায়ে পানি ঢালছিল, তখন বুকের মধ্যে মোচড় দিয়ে ওঠে। এ এক অন্য রকম ভালোবাসার টান।

আসমা বেগম নামের অপর এক অভিভাবক বলেন, সন্তানদের এই ভালোবাসা ভুলার নয়। তাদের জন্য আল্লার কাছে হাত তুলে মোনাজাত করেছি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পিরোজপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডা. রুস্তুম আলী ফরাজীর স্ত্রী খাদিজা বেগম খুশবু।

বক্তব্য দেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মনিকা আক্তার, একাডেমিক সুপারভাইজার রুহুল আমীন, মঠবাড়িয়া থানার উপ-পরিদর্শক শাহানাজ পারভিন, ইসরাত জাহান মমতাজ ও যুবমহিলা নেত্রী শামীমা সুলতানা রোজি।

সূত্র: আরটিভিঅনলাইন

এই বিভাগের আরও সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *