মেনোপজের পর হাড়ের ক্ষয় রুখতে হরমোন থেরাপি - Women Words

মেনোপজের পর হাড়ের ক্ষয় রুখতে হরমোন থেরাপি

মেনোপজের পর বিভিন্ন ধরণের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ সময় শরীর দুর্বল হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক ব্যাপার। হাড়ের ঘনত্ব কমে গিয়ে বাতের সমস্যা, হাড় ভঙ্গুর হয়ে যাওয়ার সমস্যাতেও ভোগেন প্রচুর মহিলা। মেনোপজের পর হরমোন থেরাপি এই সমস্যার সমাধান করতে পারে বলে জানাচ্ছেন চিকিত্সকরা।

সুইজারল্যান্ডের লসন ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের গবেষক জর্জিস পাপাদাকিস বলেন, “সঠিক পরিমাণ হরমোন থেরাপি মেনোপজের পর হাড়ের ক্ষয় রুখতে ও বাতের সমস্যা দূরে রাখতে পারে। ৬০ বছরের কম বয়সী মহিলাদের ক্ষেত্রে এই চিকিত্সা অনেক বেশি কার্যকর হয়।”

লসনের বাসিন্দা ৫০ থেকে ৮০ বছর বয়সী ১,২৭৯ জন মহিলার ওপর এই গবেষণা চালানো হয়। অংশগ্রহণকারীদের তিন ভাগে বিভক্ত করা হয়েছিল। এদের মধ্যে ২২ শতাংশ মহিলার ওপর গবেষণার সময় হরমোন থেরাপি চলছিল, ৩০ শতাংশ মহিলা আগে হরমোন থেরাপি করিয়েছিলেন ও ৪৮ শতাংশ মহিলা কখনই হরমোন থেরাপির মধ্যে দিয়ে যাননি।

হরমোন থেরাপি হাড়ের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সত্যিই কার্যকর কিনা তা বুঝতে চিকিত্সকরা এক্স-রে অ্যাবজর্বটিওমেট্রি স্ক্যানের সাহায্য নেন। সেই স্ক্যানের ওপর ভিত্তি করে প্রত্যেককে ট্রাবেকুলার বোন স্কোর দেওয়া হয়। যেই স্কোরের ওপর নির্ভর করে চিকিত্সকরা বুঝতে পারেন মেনোপজের পর হাড় কতটা ভঙ্গুর হয়েছে। বয়স ও বিএমআই এই পরীক্ষার দুটো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সেই সঙ্গেই শরীরে ক্যাসলিয়াম ও ভিটামিন ডি-র পরিমাণও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। রক্তে ভিটামিন ডি-র পরিমাণ বুঝতে বিশেষ রক্ত পরীক্ষাও করা হয়।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, যাঁরা গবেষণা চলাকালীন হরমোন থেরাপি করাচ্ছিলেন তাঁদের হাড় ভঙ্গুর হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম। যাঁরা কোনও দিন হরমোন থেরাপি করাননি তাঁদের ঝুঁকি রয়েছে সবচেয়ে বেশি। তাঁদের তুলনায় কিছুটা ভাল অবস্থায় রয়েছেন যাঁরা কখনও হরমোন থেরাপি করিয়েছিলেন।

সূত্র: আনন্দবাজার