উৎপলকে নিয়ে আদালতে হাজির ঐশী - Women Words

উৎপলকে নিয়ে আদালতে হাজির ঐশী

কথিত অপহরণের ১০ দিন পর প্রেমিককে নিয়ে আদালতে হাজির হলেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের শেষ বর্ষের ছাত্রী ঐশী হামোম। তার পরিবারের অভিযোগ ছিল,প্রেম ভেঙে যাওয়ায় ঐশীকে অপহরণ করা হয়েছে। তারা এ নিয়ে থানায় মামলাও করেন। গত ৭ নভেম্বর থেকে ঐশী নিখোঁজ ছিলেন বলে তার পরিবার দাবি করে।

বৃহস্পতিবার সকালে আদালতে হাজির হন ঐশী । বেলা দুইটায় আদালতে তাদের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। দুপুর ২টায় অতিরিক্ত মহানগর বিচারিক হাকিম উম্মে সরাবন তহুরা তাদের নিজ নিজ জিম্মায় জামিন মঞ্জুর করেন।

জানা যায়, ঐশী স্বেচ্ছায় তার প্রেমিক লিডিং ইউনিভার্সিটির সাবেক ছাত্র উৎপল সিংহের সাথে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করেছেন। কিন্তু নিখোঁজ হওয়ার পর শাহপরান থানায় তার বাবা সনাতন হামোম বাদি হয়ে উৎপলের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা করায় তারা আদালতে হাজির হন।

এ ব্যাপারে নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) জেদান আল মুসা জানান, ‘মেয়েটি নিখোঁজ থাকায় আমরা তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু তিনি স্ব-ইচ্ছায় প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যান। আজ তিনি প্রেমিক সহ আদালতে গিয়েছেন।’

ঐশীর নিখোঁজের ঘটনার পর সিলেট নগরীর শাহপরান থানায় পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় নগরীর লিডিং ইউনিভার্সিটির সাবেক ছাত্র উৎপল সিংহ ও তাঁর বাবা-মাকে আসামী করা হয়।

ঐশী মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের সনাতন হামোমে মেয়ে এবং উৎপল হবিগঞ্জের উপেন্দ্র সিংহের ছেলে।

এর আগে ঐশীর কাকাতো ভাই, হামোম বুঙোচা বলেন, উৎপল সিংহ নামে লিডিং ইউনিভার্সিটির ছাত্র উৎপলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো ঐশীর। বছরখানেক আগে এই সম্পর্ক ভেঙ্গে গেলে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে উৎপল। এরপর থেকেই সে ঐশীকে মোবাইল ফোনে ও ফেসবুকে বিরক্ত করতে থাকেন। এমনকি হুমকিও দিতে থাকে। এরপর তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা হয়।

সূত্র: সিলেটটুডেটুয়েন্টিফোর