মন্দির ও বাড়িঘরে হামলা: নাসিরনগরে যাচ্ছে আ'লীগের প্রতিনিধি দল - Women Words

মন্দির ও বাড়িঘরে হামলা: নাসিরনগরে যাচ্ছে আ’লীগের প্রতিনিধি দল

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলায় হিন্দুদের মন্দির ও বাড়িঘরে ভাংচুর, লুটপাট ও হিন্দু অধিবাসীদের মারধরের ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও হামলায় আহতদের দেখতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল।

আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ সোমবার সন্ধ্যায় এ তথ্য জানানো হয়।

আগামীকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীমের নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও হামলায় আহতদের দেখতে যাবে। প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন— আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য গোলাম রাব্বানী চিনু ও মারুফা আক্তার পপি।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার উপজেলার হরিণবেড় গ্রামের রসরাজ দাস ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন, যেখানে তিনি ফটো এডিটরের মাধ্যমে মুসলমানদের পবিত্র কাবা ঘরের সঙ্গে হিন্দুদের দেবতা শিবের একটি ছবি জুড়ে দেন।

ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি পোস্ট করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগ তুলে শনিবার সকালে রসরাজ দাসকে (৩০) ধরে ইউপি কার্যালয়ে নিয়ে যান স্থানীয়রা। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় রাতেই রসরাজের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়।

এ ঘটনার জের ধরে রোববার উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের পাশাপাশি প্রায় শতাধিক হিন্দু বাড়িঘর এবং দত্তবাড়ি ও জগন্নাথ বাড়ি মন্দিরসহ অন্তত ১০টি মন্দিরে হামলা-ভাঙচুর চালানো হয়। এসময় শতাধিক বাড়িঘরে ভাঙচুর ও লুটপাটেরও অভিযোগ ওঠে। খবর পেয়ে পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাব সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

পুলিশ বলছে, ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে ৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা কোন সংগঠনের সাথে যুক্ত বলে এখনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

তবে পুলিশ মনে করছে এ ঘটনার পেছনে বড় ধরণের উসকানি রয়েছে। পুলিশ উসকানি দাতাকে খুঁজছে।

সূত্র: সমকাল, বিবিসি বাংলা