দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই সাক্ষ্য দিলেন শ্যামল কান্তি - Women Words

দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই সাক্ষ্য দিলেন শ্যামল কান্তি

নারায়ণগঞ্জের শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় মঙ্গলবার দ্বিতীয় দিনের মতো সাক্ষ্য গ্রহণ চলছে। আজ দিনের শুরুতেই সাক্ষ্য দিয়েছেন শ্যামল কান্তি ভক্ত।

হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী গতকাল সোমবার থেকে এ সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে। বিচার বিভাগীয় তদন্তে এসে সাক্ষ্য নিচ্ছেন ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) শেখ হাফিজুর রহমান।

জেলা সার্কিট হাউসে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে এই সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। সেখানে স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্ত ছাড়াও বন্দর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), উপজেলার চেয়ারম্যানসহ সম্ভাব্য মোট ১৫ জনকে ডাকা হয়েছে।

আজ বিচারকাজ চলার সময় সার্কিট হাউস প্রাঙ্গণে সাংসদ সেলিম ওসমানের অনুসারীরা শ্যামল কান্তি ভক্তের শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসীর ব্যানারে মানববন্ধন করেছেন। গতকাল সোমবারও বিচারকাজ চলার সময় সেলিম ওসমানের অনুগতরা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ ও বিদ্যালয়মুখী রাস্তাগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখেন।

গতকাল সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বন্দর উপজেলার কল্যান্দী এলাকায় অবস্থিত পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চবিদ্যালয়ে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগকারী স্কুলছাত্র রিফাত হাসানসহ ১৮ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।

গত ১৩ মে ধর্মীয় অবমাননাকর উক্তির অভিযোগে বন্দর উপজেলার পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তি ভক্তকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। পাশাপাশি স্থানীয় জাপা (এ) দলীয় এমপি সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে কান ধরে  তাঁকেওঠবস করানো হয়। এ ঘটনা গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পায়। তখন সারা দেশে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

এ ঘটনায় সরকারের মন্ত্রীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক মহল থেকে স্থানীয় সাংসদ সেলিম ওসমানকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি ওঠে। কিন্তু সেলিম ওসমান সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, শিক্ষককে নয়, ‘নাস্তিককে’ শাস্তি দিয়েছেন তিনি।

সূত্র: প্রথম আলো