কথা বলতে সময় লাগবে খাদিজার - Women Words

কথা বলতে সময় লাগবে খাদিজার

খাদিজা প্রতিদিন একটু একটু করে সুস্থ হয়ে উঠছে। তবে তার মাথায় আঘাত গুরুতর, তাই কথা বলা সময়ের ব্যাপার। সিলেটের আহত ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস প্রসঙ্গে এই মন্তব্য করেন স্কয়ার হাসপাতালের মেডিসিন অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিভাগের সহযোগী পরিচালক ডা. মির্জা নাজিম উদ্দিন।   

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজাকে দু-তিন দিনের মধ্যে কেবিনে দেওয়া হতে পারে বলে আজ শনিবার জানান নার্গিসের বাবা মাসুক মিয়া।

চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে মাসুক মিয়া বলেন, আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে নার্গিসকে কেবিনে দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সে কথা বলতে পারছে না। ডাক দিলে তাকিয়ে থাকে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কথা বলতে সময় লাগবে।

তিনি আরো জানান, শনিবার সকালে নার্গিসকে কিছু সময় হুইল চেয়ারে বসিয়ে ঘুরানো হয়েছে। এরপর তাকে জেলি, কেক, পানি ও জুস খাওয়ানো হয়।

প্রসঙ্গত, সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের স্নাতক (পাস) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা গত ৩ অক্টোবর পরীক্ষা দিতে এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে গিয়েছিলেন। বিকেলে পরীক্ষা দিয়ে বেরিয়ে আসার সময় প্রকাশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক ও অর্থনীতি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র বদরুল আলম। পরে অন্য শিক্ষার্থীরা তাকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন। বদরুলের বাড়ি সুনামগঞ্জের ছাতকে।

খাদিজা ও বদরুলকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। ঘটনার দিন রাতে খাদিজার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

খাদিজাকে কুপিয়ে আহত করার ভিডিও ও আলোকচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হয়। এই ঘটনার প্রতিবাদে ফুঁসে উঠে গোটা দেশ।

এ ঘটনায় সিলেটের শাহপরাণ থানায় বদরুলকে আসামি করে হত্যা চেষ্টা মামলা করা হয়। হামলার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বদরুল ।

সূত্র: কালের কন্ঠ