দেশে আসছে শহীদ কাদরীর মরদেহ - Women Words

দেশে আসছে শহীদ কাদরীর মরদেহ

দেশে আসছে একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি শহীদ কাদরীর মরদেহ। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সময় রোববার মাগরিবের নামাজের পর তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

সোমবার স্থানীয় সময় রাত ১১টার দিকে এমিরেটস ফ্লাইটে কবির মরদেহ দেশে পাঠানো হবে। এই ফ্লাইটে থাকবেন কবিপত্নী নীরা কাদরী। সকালের অন্য ফ্লাইটে যাবেন কবিপুত্র।

স্থানীয় সময় রোববার হাসপাতালের আনুষ্ঠানিকতা সেরে কবির মরদেহ রাখা হয় মুসলিম ফিউনারেলে। সেখান থেকে বিকেলে মরদেহ নেওয়া হয় জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে। এ সময় কবিকে শেষবারের মতো দেখতে ছুটে যান নিউইয়র্কের বাংলাদেশ সরকারের প্রতিনিধি, কবি, সাংবাদিক কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের মানুষ। মাগরিবের নামাজের পর জানাজা অনুষ্ঠিত হয় মুসলিম সেন্টারে। জানাজায় ইমামতি করেন জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের ইমাম আবু জাফর বেগ।

নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে গতকাল রোববার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে সাতটায় বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান এই কবি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। শহীদ কাদরী ১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের (বর্তমানে ভারত) রাজধানী কলকাতার পার্ক সার্কাসে  জন্মগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে ১৯৫২ সালের দিকে পরিবারের সাথে তিনি পূর্ব পাকিস্তানের (বর্তমানে বাংলাদেশ) রাজধানী ঢাকায় চলে আসেন। এরপর প্রায় তিন দশক তিনি ঢাকা শহরে অবস্থান করেন এবং ১৯৭৮ সাল থেকে প্রবাসজীবন শুরু করেন।তিনি বার্লিন, লন্ডন, বোস্টন এবং মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত নিউইয়র্কে বসবাস করেছেন।

শোক: কবি শহীদ কাদরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শোকবার্তায় বলেন, শহীদ কাদরীর মৃত্যুতে আধুনিক বাংলা কবিতা এক উজ্জ্বল নক্ষত্রকে হারাল। তিনি কবির আত্মার মাগফিরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করে।

কবির মৃত্যুতে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরও গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

এ ছাড়া জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতি কবি মুহাম্মদ সামাদ ও সাধারণ সম্পাদক তারিক সুজাত এক বিবৃতিতে শহীদ কাদরীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বাংলা কবিতায় তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা স্মরণ করেন। সূত্র : প্রথম আলো