জেএমবির ৪ নারী জঙ্গির পরিচয় প্রকাশ - Women Words

জেএমবির ৪ নারী জঙ্গির পরিচয় প্রকাশ

গ্রেপ্তারকৃত জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) চার নারী সদস্যের পরিচয় প্রকাশ করেছে র‌্যাব। তাদের মধ্যে আকলিমা রহমান, মৌ ও মেঘলা মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থী। আর ঐশী ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেছেন।

মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুরের পাইকপাড়ায় র‍্যাব-৪ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

র‍্যাব জানায়, গাজীপুরের সাইনবোর্ড, মগবাজার ও মিরপুর এলাকা থেকে ওই চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।
র‍্যাবের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জেএমবির দক্ষিণাঞ্চলের আমির মাহমুদুল হাসানকে গত ২১ জুলাই গাজীপুর থেকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। জিজ্ঞাসাবাদে মাহমুদুল জানান, তাঁদের কার্যক্রমে মেয়েদের একটি দল জড়িত। আকলিমা তাঁকে গত রমজান মাসে ১২ হাজার টাকা ইয়ানত (চাঁদা) জোগাড় করে দেন। এর পর থেকে আকলিমাকে গোয়েন্দা নজরদারিতে রাখে র‍্যাব।
র‍্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিভিন্ন সময় আকলিমা জেএমবির দাওয়াতি কার্যক্রমে যোগ দিতে প্ররোচনা দিয়ে আসছিলেন। ‘নতুন ধারার’ জঙ্গিবাদে উৎসাহ দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। গতকাল দিবাগত রাত দুইটার দিকে গাজীপুরের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে র‍্যাব-৪-এর একটি দল আকলিমাকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তাঁর মুঠোফোনে জঙ্গিবাদ ও বিপুল পরিমাণ অন্যান্য তথ্য পাওয়া যায়। দেড় বছর ধরে তিনি এই জিহাদি দলের সঙ্গে রয়েছেন। মাহমুদুল হাসানের কাছ থেকে বাইয়াত গ্রহণের পর তাঁর সংশ্লিষ্টতা আরও বেড়ে যায়। আকলিমা জেএমবির নারী বিষয়ক উপদেষ্টা।
র‍্যাবের বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, আকলিমার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী মগবাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ঐশীকে। তাঁর কাছ থেকে ল্যাপটপ জব্দ করা হয়। এতে বিপুল পরিমাণ জিহাদি-বিষয়ক তথ্য, ম্যাগাজিন, লেকচার ভিডিওর সফট কপি পাওয়া গেছে। মিরপুর-১-এর জনতা হাউজিংয়ে অভিযান চারায় র‌্যাব। তখন মৌ নামের আরেক নারীকে গ্রেপ্তার করে। র‍্যাব মৌ এর বাসায় প্রবেশের আগেই তিনি মুঠোফোনের মেমোরি কার্ড ধ্বংস করে ফেলেন। র‍্যাব পরে তাঁর বাসায় তল্লাশি চালিয় জিহাদি চেতনামূলক বই উদ্ধার করে।
র‍্যাবের তথ্যমতে, আকলিমা ও মৌয়ের দাওয়াতে সাড়া দিয়ে জিহাদি দলে ভেড়েন মেঘলা। তাঁকে মিরপুরের জনতা হাউজিংয়ের সাবলেট বাসা থেকে গতকাল রাত ১০টার দিকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব । তাঁর কাছ থেকেও একই ধরনের জিহাদি বই, বক্তৃতা ও জিহাদি ভিডিও এবং নির্দেশনার সফট কপি পাওয়া যায়। ঐশী তিন বছর ধরে, মৌ ও মেঘলা সাত মাস ধরে জিহাদি কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত বলেও সংস্থাটি দাবি করেছে।

গত জুলাই মাসে সিরাজগঞ্জে এবং টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে নিষিদ্ধ এই জঙ্গি দলের সাত নারী সদস্যকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছিল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। তাদের কাছ থেকে অস্ত্র, বিস্ফোরক তৈরির সরঞ্জাম এবং উগ্র মতবাদের বই উদ্ধার করা হয়েছিল। টাঙ্গাইলে গ্রেপ্তার তিনজন জেএমবির আত্মঘাতী দলের সদস্য বলে সে সময় জানায় পুলিশ।

পুলিশ কর্মকর্তাদের মতে, গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলাসহ বাংলাদেশে সাম্প্রতিক উগ্রপন্থিদের বিভিন্ন নাশকতার ঘটনায় জেএমবি দায়ী। গত কয়েক মাস ধরে নিখোঁজদের তালিকায় যারা জঙ্গিবাদে জড়িয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে, তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী।

সূত্র: প্রথম আলো, বাংলাট্রিবিউন

 

এ সংক্রান্ত অন্য সংবাদ

‘জেএমবির’ ৪ নারী সদস্য আটক