সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন

মুকুট জিততে আমাকে বিকিনি পরতে হয়নি : মিস আমেরিকা

মুকুট জিততে আমাকে বিকিনি পরতে হয়নি : মিস আমেরিকা

মিস আমেরিকা ২০১৯ এর বিজয়ের মুকুট ওঠেছে মিস নিউ ইয়র্ক নিয়া ইমানি ফ্রাঙ্কলিনের মাথায়। এ প্রতিযোগিতায় এবারই প্রথম সাঁতারের পোশাক পরে নিজেকে প্রদর্শন করতে হয়নি প্রতিযোগিদের। ৯৮ বছরের প্রথা ভেঙে এই প্রথম কোনো সুন্দরীকে তকমা পরালেন নির্বাচকরা।

গতকাল রোববার রাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টিক সিটিতে মিস আমেরিকা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।

মুকুট পরার কিছুক্ষণের মধ্যেই বিজয়ী নিয়া ফ্রাঙ্কলিন আসেন সংবাদমাধ্যমের সামনে এবং মজা করে বলেন, এটা খুব ভালো হয়েছে যে আমাকে সাঁতারের পোশাক পরে নির্বাচকদের সামনে হাঁটতে হয়নি। এ জন্য আমি আরো সামান্য বেশি কিছু খেতে পেরেছি।

তিনি বলেন, এটা দারুণ একটি পরিবর্তন। আমি মনে করি এটা গ্রহণযোগ্য। এমন অনেকেই আমার সাথে ব্যক্তিগতভাবে সাক্ষাৎ করেছেন, আমি যখন মিস নিউ ইয়র্ক ছিলাম, তাঁরা অনেকেই পছন্দ করেন না সাঁতারের পোশাক পরে হাঁটতে। এই বিষয়টিতে মূল প্রতিযোগিতা থেকে বাদ দেওয়ায় এখন অনেকেই অংশ নেবেন এই সুন্দরী প্রতিযোগিতায়। যাঁদের মধ্যে কেউ না-কেউ তো পাবেনই এই স্কলারশিপটা। 

উল্লেখ্য, বিজয়ীর মুকুট ছাড়াও ৫০ হাজার ডলারের স্কলারশিপ পাবেন মিস আমেরিকা। 

নিজের ব্যাপারে দারুণ কনফিডেন্ট এই কৃষ্ণসুন্দরী আরও বলেন, আমি আনন্দিত যে, এই টাইটেল নাইটে আমাকে সুইম-স্যুট পরে হাঁটতে হয়নি। আমি মনে করি আমি এটার চেয়েও অনেক বেশি যোগ্য। শুধু আমি নই, এখানে- এই স্টেজে যাঁরা আছেন তাঁরা প্রত্যেকেই অনেক বেশি যোগ্য।

নিয়া ফ্রাঙ্কলিন একজন অপেরা গায়িকা। ইউএনসি স্কুল অব দা আর্টস থেকে সংগীত পরিচালনা বিষয়ে তিনি মাস্টার্স করেন। তিনি ছিলেন নর্থ ক্যারোলিনা রাজ্যের উইনস্টন-সালেমে’র অধিবাসী। ম্যানহাটনের লিঙ্কন সেন্টার এডুকেশনে ‘কেনিন ফেলো’ প্রোগ্রামে সুযোগ পাওয়ার পর তিনি নিউইয়র্কে বসবাস শুরু করেন।

সংগীতের মাধ্যমে তিনি কিভাবে তার অস্তিত্ব খুঁজে পান, তা তিনি বর্ণণা করেছেন মিস আমেরিকা প্রতিযোগিতায়।

ফ্রাঙ্কলিন বলেন, যে স্কুলে আমি লেখাপড়া করেছি সেখানে আগে থেকেই ককেশিয়ানদের প্রাধান্য ছিল এবং সেখানে মাত্র পাঁচ শতাংশ সংখ্যালঘু ছিল, আমার গায়ের রঙ এর কারণে সেখানে আমি খাপ খাওয়াতে পারতাম না।

তিনি বলেন, বড় হতে হতে আমি বুঝতে পেরেছি শিল্পের প্রতি আমার ভালোবাসা রয়েছে এবং সংগীত, যা আমার নিজের প্রতি ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তুলেছে এবং বুঝতে শিখিয়েছে আমি কি ছিলাম।

মিস আমেরিকা থাকাকালীন সময়ে তিনি শিল্প নিয়ে কাজ করবেন বলে জানান ফ্রাঙ্কলিন।

৫১ জন প্রতিযোগীর ভেতর থেকে বেছে নেওয়া হয় এবারের মিস আমেরিকাকে। প্রথম রানার আপ হন মিস কানেকটিকাট ব্রিজেত ওই। আর দ্বিতীয় ও তৃতীয় রানার আপ হন যথাক্রমে মিস লুসিয়ানিয়া হলি কনওয়ে ও মিস ফ্লোরিডা টেইলর টাইসন। আর চতুর্থ রানার আপ হন মিস ম্যাসাচুসেটস গ্যাব্রিয়েলা তাভেরাস।

সূত্র : সিএনএন, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস  

 

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © 2015 womenwords.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ