মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, ০৭:০৫ পূর্বাহ্ন

প্রেম নিবেদনে চকলেট

প্রেম নিবেদনে চকলেট

‘চকলেট’ শব্দটার মধ্যে যেন আবদার লুকিয়ে রয়েছে। আদুরে আবদার। আমায় একটা চকলেট দেবে তো! চকলেটের নাম শুনলে কি মেয়েদের জিভে জল চলে আসে? সেটা কি পুরুষের থেকে বেশি? এ সব নিয়ে কোনো গবেষণা হয়েছে কি না কে জানে! তবে একটা কথা মানতেই হবে, মেয়েরা যেন ‘চকলেট’ এর ব্যাপারে অনেকটা শিশু। এমনিতেই মেয়েদের বয়স ধীরে ধীরে বাড়ার অভিযোগ রয়েছে, তার ওপর যদি চকলেটের প্রসঙ্গ আসে তবে তো কথাই নেই। সবার গলাতেই আদুরে বিজ্ঞাপনী ছেলেমানুষি সুর- ‘আমি তো এমনি এমনি খাই’।

এক টুকরো চকলেট পেলে একটা শিশু যেমন কলকল করে ওঠে, তেমন করেই এক টুকরো চকলেট দিয়ে উচ্ছ্বল করে তোলা যায় প্রেয়সীকে। এক গোছা গোলাপের পাশে তাই আদুরে টেডির মতো, আহ্লাদী চকলেটও জায়গা পেয়ে যায় প্রেম নিবদনে।

চকলেটের মতো ভালোবাসা পাওয়ার আশাতেই কি ছেলেরা মেয়েদের চোখে ‘চকলেট বয়’ হয়ে উঠতে চায়? কে জানে! সেই সূত্র ধরেই ভ্যালেনটাইন্স পরবে ‘চকলেট ডে’ চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত করে ফেলেছে কি না, তা-ও জানা নেই। তবে একটা কথা ঠিক। এক টুকরো চকলেট মানে অনেকখানি উষ্ণতা। সেটা যতই কম দামি হোক না কেন।

শুধুই প্রেম পর্বে কেন, জন্মদিন থেকে অন্য যে কোনও আনন্দোৎসব- সবকিছুতেই উপহারের ডালিতে অপ্রতিদ্বন্দ্বী চকলেট। ইতিহাস বলছে, ভ্যালেন্টাইনস সপ্তাহের তৃতীয় দিনটি ইউরোপ আমেরিকায় উদযাপিত হয় এক বাক্স চকলেট দিয়ে। সেই প্রাচীনকাল থেকেই নাকি চকলেট-উপহারের মাধ্যমে পছন্দের মানুষটির কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে মনের বার্তা।

গবেষকরা বলেন, চকলেটে এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে, যা উদ্দীপকের কাজ করে। আবার দুশ্চিন্তা, ক্লান্তি থেকেও মুক্তি দেয় চকলেট। নিশ্চিন্ত প্রেমের জন্য এমন কাজের জিনিস প্রেমিকদের কাছে মূল্যবান তো হবেই।

সুতরাং, আর দেরি করা নয়। যাকে ভালোবাসতে ইচ্ছা করে, তাকে এক বাক্স চকলেট দিয়েই দিন। এক মুখ হাসি আপনাকেও উদ্দীপ্ত করে তুলবে। আরও একটা বড় কথা, গোলাপ ফুল দিতে গেলে কোনও মেয়ে রিফিউজ করতেই পারে, কিন্তু চকলেট কক্ষণও নয়।

সূত্র: কালের কন্ঠ

 

নিউজটি শেয়ার করুন







© All rights reserved © 2015 womenwords.com
পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ