স্বামীকে ডিভোর্স অত:পর সেরা নারীর তালিকায় মুনিবা (ভিডিও)

পাকিস্তানের রক্ষণশীল পরিবারে জন্ম নেওয়া মুনিবা মাজারির বিয়ে হয় মাত্র ১৮ বছর বয়সে। অসুখী দাম্পত্য জীবনের মাত্র দুই বছরের মাথায় এক সড়ক দুর্ঘটনা বদলে দেয় তার জীবন। মেরুদণ্ডে চোট লাগায় চলাফেরার শক্তি হারিয়ে ফেলেছিলেন মুনিবা। ডাক্তার জানান, মুনিবার পক্ষে আর কখনো মা হওয়াও সম্ভব নয়। চূড়ান্ত হতাশায় তলিয়ে যাবার শেষ মুহূর্তে

তেভাগা আন্দোলন ও নাচোলের রানি ইলা মিত্র

ইলা মিত্র। এক আগুণের নাম, প্রতিবাদের ভাষার নাম, আন্দোলনের শক্তির নাম। বাঙালি এই মহিয়সী নারী শোষিত ও বঞ্চিত কৃষকদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আন্দোলন করেছিলেন। যে আন্দোলন করতে গিয়ে তাকে শুধু কারাভোগই করতে হয়নি, সইতে হয়েছে অমানুষিক নির্যাতন। তবুও তিনি মাথা নোয়াননি। তাই তিনি পৃথিবীর পথে প্রান্তরে আন্দোলনে সংগ্রামে নারীদের পথপ্রদর্শক। তেভাগা

যেভাবে লড়েছি

জেসমিন চৌধুরী প্রথম পরিচয়ে কেউ যখন আমাকে প্রশ্ন করেন, 'আপনি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন?' আমি বলি 'আমি পড়াশোনা তেমন একটা করিনি।' আমার সখাটি তখন বাঁকা চোখে তাকান, পরে বলেন 'তুমি এমন করে বলো কেন?' একটা গভীর অভিমান থেকেই এমন করে বলি। এসএসসি পাশ করার পর কলেজে ভর্তি হলাম, তার কিছুদিন পরেই একজন দেখতে

এক সংগ্রামী নারীর হাওর বাঁচানোর লড়াই

সুনামগঞ্জের হাওরগুলোতে যখন হু হু করে পানি ঢুকতে শুরু করেছে তখন তিনি ঘর ছাড়েন। একে একে হাওরগুলোকে গ্রাস করতে থাকে বানের জল। কিন্তু তখনও নিরাপদ শনির হাওর। হাজারো মানুষের মুখের দিকে চেয়ে এক নারী টানা ২৪ দিন পড়ে ছিলেন বাঁধ রক্ষায় শনির হাওরে। তিনি মনেছা বেগম। জামালগঞ্জ উপজেলার বেহেলী ইউনিয়নের

রিকশা চালক জেসমিন

নারীবাদীদের কাছে এক দৃষ্টান্ত হতে পারেন চট্টগ্রামের মোসামাৎ জেসমিন৷ পুরুষশাসিত সমাজে তিনি বেছে নিয়েছেন এমন এক পেশা, যা মূলত পুরুষের কাজ হিসেবেই বিবেচিত৷ রিকশায় চালকের আসনে মেয়েদের সচরাচর দেখা যায় না বাংলাদেশে৷ জেসমিন তাই ব্যতিক্রম৷ জীবন চালাতে রিকশাকে বেছে নিয়েছেন তিনি৷ সন্তানদের ক্ষুধার্ত রাখতে চান না তিনি, চান ভালো স্কুলে তাদের

ট্রাম্পবিরোধী আন্দোলনের প্রতীক এখন বাংলাদেশি মুনিরা

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৩২ বছর বয়সী মুনিরা আহমেদ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চলমান আন্দোলনের প্রতিবাদী মুখে পরিণত হয়েছেন। নিউ ইয়র্ক শহরের কুইন্সে বসবাসরত মুনিরা পেশায় মার্কিন ফ্রিল্যান্সার। গত শনিবার ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে লাখ লাখ নারীর যে প্রতিবাদ আন্দোলন হয়েছে; সেই প্রতিবাদে বাংলাদেশি এই তরুণীর ছবি দেখা যায় সবার হাতে হাতে। ‌‘মুনীরা আহমদ :

একজন অনুপ্রেরণীয় ঊর্বশী যাদব

প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টের একটি উক্তি হল, 'নারীরা অনেকটা টি-ব্যাগের মতো... আপনি জানতেও পারবেন তিনি কতটা শক্তিশালী যত ক্ষণ না তাঁকে গরম জলে ফেলা হচ্ছে।' কথাটি একদম সত্যি। তাঁর কথার প্রতি সুবিচার করছেন ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের গুরগাঁও শহরের বাসিন্দা ঊর্বশী যাদব। অসুস্থ স্বামী এবং দুই সন্তানকে একার হাতে সামলাচ্ছেন তিনি। গুরগাঁও-র সেক্টর

ভেড়া চড়ানো মেয়েটি এখন ফ্রান্সের শিক্ষামন্ত্রী!

অনুপ্রেরণাদায়ক ঘটনা বটে। তীব্র ইচ্ছাশক্তি মানুষকে কোথায় পৌছে দিতে পারে তাই যেন আরেকবার দেখিয়ে দিলেন নজত বেল্কাসেম। মরক্কোর এক প্রত্যন্ত গ্রামে জন্ম নেওয়া মেয়েটির শৈশব কেটেছে ভেড়া চড়িয়ে, সেই মেয়েটি কিনা শেষ পর্যন্ত হয়েছে ফ্রান্সের শিক্ষামন্ত্রী। এবার মূল ঘটনা জানা যাক, নজত বেল্কাসেম এর জন্ম মরক্কোর এক দরিদ্র মুসলিম পরিবারে ১৯৭৭

তেভাগা আন্দোলন ও নাচোলের রানি ইলা মিত্র

ইলা মিত্র। এক আগুণের নাম, প্রতিবাদের ভাষার নাম, আন্দোলনের শক্তির নাম। বাঙালি এই মহিয়সী নারী শোষিত ও বঞ্চিত কৃষকদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় আন্দোলন করেছিলেন। যে আন্দোলন করতে গিয়ে তাকে শুধু কারাভোগই করতে হয়নি, সইতে হয়েছে অমানুষিক নির্যাতন। তবুও তিনি মাথা নোয়াননি। তাই তিনি পৃথিবীর পথে প্রান্তরে আন্দোলনে সংগ্রামে নারীদের পথপ্রদর্শক। তেভাগা

আইএস’র যৌনদাসী থেকে জাতিসংঘের ‘শুভেচ্ছাদূত’ নাদিয়া

ইসলামিক স্টেট-এর যৌনদাসী হিসেবে দিনের পর দিন গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। সইতে হয়েছে অকথ্য অত্যাচার। কাঁদতে কাঁদতে চোখের জলও একসময় শুকিয়ে গিয়েছিল। শরীর আর মনের নিদারুণ যন্ত্রণার মধ্যে থেকেও মুক্তির স্বপ্ন দেখেছেন সবসময়। ভেবেছেন- পালাতে হবে। পালাতেই হবে। শেষ পর্যন্ত চরম ঝুঁকি নিয়ে সেই নরক থেকে পালাতে পারা নাদিয়া মুরাদই এখন