You are here
নীড়পাতা > সংবাদ > বাংলাদেশ > ২৩৬৭ গেরিলা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির রায় বহাল

২৩৬৭ গেরিলা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতির রায় বহাল

Your ads will be inserted here by

Easy Plugin for AdSense.

Please go to the plugin admin page to
Paste your ad code OR
Suppress this ad slot.

মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া গেরিলা বাহিনীর ২ হাজার ৩৬৭ যোদ্ধাকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকাসংবলিত গেজেট বাতিল করার প্রজ্ঞাপন অবৈধ ঘোষণার হাইকোর্টের রায় বহাল রেখেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের করা লিভ টু আপিল (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) খারিজ করে দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আজ মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। গেরিলা যোদ্ধাদের পক্ষে ছিলেন ড. কামাল হোসেন ও সুব্রত চৌধুরী। ফলে ২৩৬৭ গেরিলা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতিতে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রইলো বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

আদেশের পর রিট আবেদনকারীদের আইনজীবী সুব্রত চৌধুরী বলেন, এতে বিশেষ গেরিলা বাহিনীর ২ হাজার ৩৬৭ জনের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি বহাল রইল। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁদের আনুষঙ্গিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।

২০১৩ সালের ২২ জুলাই ন্যাপ-কমিউনিস্ট পার্টি-ছাত্র ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনীর ওই ২ হাজার ৩৬৭ জন যোদ্ধাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকার। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য যোদ্ধারা হলেন, কমরেড মণি সিংহ, প্রফেসর মোজাফফর আহমেদ ও পঙ্কজ ভট্টাচার্য।

পরে কোনও কারণ ছাড়াই ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর আগের প্রজ্ঞাপন বাতিল করে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়, যেটিতে ওই গেরিলা যোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধা তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়।

গত বছর ৮ সেপ্টেম্বর একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া গেরিলা বাহিনীর ২ হাজার ৩৬৭ জন যোদ্ধাকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে বাদ দিয়ে জারি করা প্রজ্ঞাপন অবৈধ বলে রায় দেন হাইকোর্ট। ওই প্রজ্ঞাপন বাতিল করে তাদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি এবং প্রাপ্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা ও ভাতা দিতেও সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়। পরে হাইকোর্টের এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে রাষ্ট্রপক্ষ।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

Similar Articles

Leave a Reply