You are here
নীড়পাতা > সংবাদ > ক্যাম্পাস > ‘সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি’ পরা নিষেধ

‘সালোয়ারের ওপর গেঞ্জি’ পরা নিষেধ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষের সাটানো একটি নোটিশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচিত হচ্ছে। নোটিশটি হলোসকল আবাসিক ছাত্রীদের জানানো যাচ্ছে যে, হলের অভ্যন্তরে দিনের বেলা অথবা রাতের বেলা কখনোই অশালীন পোশাক (সালোয়ার এর ওপর গেঞ্জি) পরে ঘোরাফেরা অথবা হল অফিসে কোন কাজের জন্য প্রবেশ করা যাবে না। অন্যথায় শৃঙ্খলা ভঙ্গের জন্য হল কর্তৃপক্ষ বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’ – হল কর্তৃপক্ষ।

 

এ নোটিশ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অনেকেই পোস্ট করেছেন। প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন অনেকে। নারীর ক্ষমতায়ন ও সমতা প্রতিষ্ঠায় যিনি আজীবন সংগ্রাম করে গেলেন সেই বেগম রোকেয়ার নামে নামকরণ করা হলে এরকম নোটিশ টানানো হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছেন অনেকে। হলের শিক্ষার্থীদের অনেকে বলছেন এধরণের কাজ দু:খজনক।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে হলের এক ছাত্রী বলেন, শিক্ষার্থীরা হলের ভেতরে যে পোশাক স্বস্তিদায়ক মনে করেন, সেটাই পরে থাকেন। এটা নির্ধারণ করে দেওয়া ব্যক্তিস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের নামান্তর। তিনি বলেন, একটি প্রগতিশীল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ ধরনের নিয়ম কার্যকর করার উদোগ দুঃখজনক ও হতাশাজনক।

জানা গেছে, ২০১২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলের কাছে প্রায় সাত একর জায়গার ওপর এ হলের যাত্রা শুরু হয়। আবাসিক ছাত্রীরা হলে ঢোকেন ২০১৩ সালে। বর্তমানে হলের আবাসিক ছাত্রীসংখ্যা দুই হাজার এবং অনাবাসিক ছাত্রীসংখ্যা ৩ হাজার ৩০০। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হলটি উদ্বোধন করেছিলেন। আর নারীর ক্ষমতায়ন এবং নারীর সমতা প্রতিষ্ঠায় সারা জীবন কাজ করা কবি সুফিয়া কামালের নামে হলটির নামকরণ করা হয়েছে।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ওই হলে গিয়ে প্রভোস্ট সাবিতা রেজওয়ানা রহমানকে পাওয়া যায়নি। হলের কার্যালয়ের অন্য কর্মকর্তারা এ বিষয়ে কোনো কথা বলতে রাজি হননি। তাঁরা হল প্রভোস্টের মুঠোফোন নম্বর দিতেও অস্বীকৃতি জানান। হলের ছাত্রীদের মধ্যে ওই নোটিশের বিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেল। কেউ কেউ বলেন, হলের কিছু ছাত্রী দৃষ্টিকটু পোশাক পরিধান করে থাকেন। তাঁদের জন্য এ ধরনের নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তবে অনেকেই এর বিরোধিতা করছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজের শিক্ষক ড. সৈয়দ শাইখ ইমতিয়াজ বলেন, ‘হলের ভেতরে মেয়েরা তাদের স্বাচ্ছন্দ্য অনুযায়ী পোশাক পরবে। এ নিয়ে হল প্রশাসনের হস্তক্ষেপের সুযোগ আছে বলে আমি মনে করি না।’

 

Similar Articles

Leave a Reply