You are here
নীড়পাতা > সংবাদ > আন্তর্জাতিক > সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘বন্ধুতা’ অতঃপর কিশোরীকে ধর্ষণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘বন্ধুতা’ অতঃপর কিশোরীকে ধর্ষণ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচয় হয়েছিল ২১ বছরের তরুণের সাথে ১৭ বছরের কিশোরী। সেখান থেকে প্রেম তারপর বিয়ের প্রতিশ্রুতি। কিন্তু ভার্চুয়াল জগত থেকে বিষয়টি যখন বাস্তবে গড়াল তখন বদলে গেল পরিস্থিতি। প্রথমে ধর্ষণ, ধর্ষণের ফলে গর্ভবতী হওয়ায় গর্ভপাতে বাধ্য করা হয়েছে বলে তরুণের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে কিশোরী।

ভারতের পুনেতে এই ঘটনা ঘটেছে। পুনের ঘটনা আরেকবার সবার সামনে নিয়ে এলো সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওত পেতে থাকা বিপদের দিকটিকে।

পুনের ভারতী বিদ্যাপীঠ থানার পুলিশ জানিয়েছে, অভিযু্ক্ত তরুণ পুনের ধয়ারি এলাকার বাসিন্দা এবং একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত। এই বছর জানুয়ারি মাসেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলাপ হয় দু’জনের। ফ্রেন্ডশিপ রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করার পর থেকে মাঝে মাঝেই চলতে থাকে চ্যাট। এভাবেই বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে মেয়েটিকে পুনে আসতে রাজি করায় অভিযুক্ত তরুণ। কথা মতো মেয়েটি পুনে এলে তাকে কাটরাজের একটি লজে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করা হয়। গত আগস্ট মাসে মেয়েটি সন্তানসম্ভবা জেনে অভিযুক্ত যুবক তাকে জোর করে গর্ভপাতে বাধ্য করে। এরপর থেকেই সে মেয়েটিকে উপেক্ষা করা শুরু করে। পুনে এসে ওই তরুণের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেও কোনও ফল হয়নি। মেয়েটির কোনও কথা শুনতে চায়নি অভিযুক্তের পরিবার। এরপরই মঙ্গলবার থানায় অভিযোগ দায়ের করে ওই কিশোরী।

ওই তরুণের বিরুদ্ধে ভারতী দণ্ডবিধির ৩৭৬(ধর্ষণ) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করা যায়নি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেলফি, চ্যাট, বন্ধুত্বের অত্যাধুনিক স্মার্ট জীবনের মাঝেই যে বিছানো রয়েছে অপরাধের জাল, বিপদের মেঘ ঘনিয়ে আসছে তরুণ প্রজন্মের জীবনে, এই ঘটনা আবারও মনে করিয়ে দিল সেই কথাই। শুধু ভারতে নয় বিশ্বের নানা প্রান্তে এই ধরনের অপরাধ বাড়ছে। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

Similar Articles

Leave a Reply