You are here
নীড়পাতা > প্রতিবেদন > শরীরের বাইরে হৃৎপিণ্ড এই বালিকার

শরীরের বাইরে হৃৎপিণ্ড এই বালিকার

মেয়েটির বয়স ৮। আর পাঁচজন বালিকার মতোই দৌড়ঝাঁপ, খেলাধুলা করতে ভালবাসে সে। তাঁর নাম ভিরসাভিয়া বোরান। কিন্তু একটি ক্ষেত্রেই সবার থেকে আলাদা এই রাশিয়ান বালিকা। জন্ম থেকেই শরীরের বাইরে হৃৎপিণ্ড নিয়ে জন্মেছিল এই মেয়েটি।

চিকিৎসকদের ভাষায় ভিরসাভিয়া ‘পেন্টালজি অফ স্যানট্রেল’ নামে এক বিরল রোগে আক্রান্ত। এই রোগের ফলেই তার বুকের মাঝে বাইরের দিকে জায়গা করে নিয়েছে হৃৎপিণ্ড।

বাইরে থেকেই দেখা যায়, কীভাবে হৃদস্পন্দন চলছে। ভিরসাভিয়া এই বিরল রোগে আক্রান্ত হলেও, সে সেই সব নিয়ে চিন্তিত নয়। সে হৃৎপিণ্ড নিয়ে নাচ, গান, খেলাধুলা করে চলেছে। কিন্তু তার এই রোগ মোটেই সহজ নয়। ১০ লক্ষ শিশুর মধ্যে ৫.৫ শতাংশ এই রোগ নিয়ে জন্মায়। এই রোগ পরে জীবন মরণ পরিস্থিতি পর্যন্ত তৈরি করতে পারে।

সম্প্রতি ভিরাসাভিয়ার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। এই ইউটিউব ভিডিও-তে দেখা যাচ্ছে যে, ভিরসাভিয়ার হৃৎপিণ্ড ঢিপঢিপ করছে। কিন্তু এই বালিকা খিলখিল করে হেসে চলেছে।

এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের কাছে ভিরসাভিয়া বলে, আমারই শুধু এইরকম হৃৎপিণ্ড রয়েছে। আমি হালকা পোশাক পরি, যাতে হৃৎপিণ্ডে আঘাত না লাগে। আর তার পরে আমি স্বাভাবিক ভাবেই হেঁটে বেড়াই, লাফাই, দৌড়াই।

জন্মের পরেই ভিরসাভিয়ার মাকে চিকিৎসক জানিয়েছিলেন, বেশিদিন বাঁচবে না সে। কিন্তু ৮ বছর কেটে গিয়েছে। এখনও সুস্থ্য আছে বালিকা। রাশিয়ার বাসিন্দা হলেও আপাতত মার সঙ্গে ফ্লোরিডাতে থাকে ভিরসাভিয়া। ভিরসাভিয়ার সার্জারির জন্য বহু হাসপাতাল ঘুরেছেন তার মা। কিন্তু এতো ঝুঁকিবহুল অস্ত্রপচার করতে রাজি হচ্ছে না কোনও চিকিৎসকই। কিন্তু তাও আশা ছাড়েননি তার মা।

 

 

Similar Articles

Leave a Reply