You are here
নীড়পাতা > প্রতিবেদন > মিয়ানমার সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত, গুলিবিদ্ধ ১

মিয়ানমার সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত, গুলিবিদ্ধ ১

Your ads will be inserted here by

Easy Plugin for AdSense.

Please go to the plugin admin page to
Paste your ad code OR
Suppress this ad slot.

মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) গুলিতে এক বাংলাদেশি জেলে নিহত হয়েছেন। কক্সবাজারের টেকনাফের নাফ নদীতে এ ঘটনা ঘটে। এসময় আরও এক বাংলাদেশি গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।   

নিহতের নাম নুরুল আমিন। আহ ব্যক্তির নাম মোস্তফা হোসেন। দুইজনই টেকনাফ পৌরসভার চৌধুরীপাড়ার বাসিন্দা।

সোমবার সকাল সাড়ে ৬ টায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার জলসীমার মৌলভীপাড়া সংলগ্ন নাফ নদীতে এ ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে থাকা জেলে মোহাম্মদ হাকিম জানান, বাংলাদেশ সীমান্তে নাফ নদীর মৌলভীপাড়া পয়েন্টে সোমবার ভোরে মাছ শিকারে যায় তারা তিনজন। সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে হঠাৎ করে বিজিপির ৭ জন সদস্য একটি স্পিডবোট নিয়ে বাংলাদেশে সীমান্তে ঢুকে তাদের ওপর গুলিবর্ষণ করে। এ সময় নুরুল আমিন ও মোস্তফা হোসেন গুলিবিদ্ধ হলে তাদের নিয়ে টেকনাফ ফিরে আসেন তিনি। পরে স্থানীয় আরও কয়েকজন জেলের সহায়তায় টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাদের আনা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক নুরুল আমিনকে মৃত ঘোষণা করেন।

টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিক্যাল অফিসার ডা. সুবন দাশ জানান, নুরুল আমিনের বুকে গুলি লাগায় অতিরিক্তি রক্তক্ষরণের কারণে সেই হাসপাতালে আসার আগেই মারা যান। অপর জেলে মোস্তফা হোসেনের পিঠে গুলি লেগেছে। তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মজিদ জানান, মিটিংয়ের কারণে তিনি কক্সবাজার শহরে রয়েছেন। তবে সকালে টেকনাফ বিজিবির অধিনায়ক তাকে ফোনে বাংলাদেশি জেলেরা মিয়ানমারের জলসীমায় ঢুকে মাছ শিকারের কারণে বিজিপির গুলিতে জেলে নিহতের বিষয়টি জানিয়েছেন। তাই টেকনাফ থানা থেকে পুলিশের একটি দল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে।

দুই দেশের চুক্তি অনুযায়ী সন্দেহভাজন চোরাচালানকারীদের গুলিবর্ষণ না করে গ্রেপ্তার করার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রে এটি মানা হয়নি বলে জানাচ্ছে বিজিবি।

এই ঘটনায় বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিবি) পক্ষ থেকে একটি প্রতিবাদলিপি পাঠানো হচ্ছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন, বিবিসি বাংলা

 

 

 

Similar Articles

Leave a Reply