You are here
নীড়পাতা > সাম্প্রতিক > ভারতে পাঠ্যবইয়ে নারী দেহের ‘সেরা অনুপাত’ বর্ণনা !

ভারতে পাঠ্যবইয়ে নারী দেহের ‘সেরা অনুপাত’ বর্ণনা !

ভারতে পাঠ্যপুস্তকে নারীদেহের ‘সেরা অনুপাত’ ৩৬-২৪-৩৬ বলে বর্ণনা করায় দেশজুড়ে হৈচৈ শুরু হওয়া পর দেশটির শিক্ষামন্ত্রী এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

বইয়ের যে পাতায় নারীদেহের বর্ণনা আছে সেই পাতার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

শিক্ষামন্ত্রী প্রকাশ জাভাদেকর সাংবাদিকদের বলেন, তিনি এ ঘটনার কঠোর নিন্দা জানাচ্ছেন এবং এ বিষয়ে ‘যথাযথ ব্যবস্থা’ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, “আমি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ওই বই পড়ানো এখনই বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছি।”

ভারতের সেন্ট্রাল বোর্ড অব সেকেন্ডারি এডুকেশনের (সিবিএসই) পাঠ্যসূচি অনুসরণ করে এমন কয়েকটি বিদ্যালয়ে ওই বইটি পড়ানো হয়।

বইটির প্রকাশক দিল্লির একটি বেসরকারি কোম্পানি।

বইটিতে আরও বলা হয়, “নারীদের নিতম্বদেশের হাড় পুরুষদের ‍তুলনায় চওড়া হয় এবং তাদের দুই হাঁটুর মাঝখানে কিছুটা ফাঁক রয়েছে। শরীরের এমন গঠনের কারণে নারীরা ঠিকমত দৌড়াতে পারে না।”

সিবিএসই কর্তৃপক্ষ জানান, তাদের পক্ষে বেসরকারি ভাবে প্রকাশিত সব পাঠ্যবইয়ের উপর নজরদারি সম্ভব না।

বেসরকারি ওই প্রকাশনীটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, “তারা তাৎক্ষণিকভাব সমালোচিত ওই বইটি ছাপা, বিক্রয় এবং বিপণন বন্ধ করে দিয়েছেন।”

ভারতে পাঠ্যবই নিয়ে বিতর্ক নতুন নয়।

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে প্রাণী অধিকার রক্ষাকর্মীরা পাঠ্যবইয়ের একটি অধ্যায় নিয়ে আন্দোলন শুরু করে। ওই অধ্যায়ে শিশুদের ‘কিভাবে বিড়ালের বাচ্চা শ্বাসরোধ করে হত্যা করা যায়’ তার শিক্ষা দেওয়া হয়।

মহারাষ্ট্রে একটি পাঠ্যবইয়ে লেখা হয়, ‘কুৎসিত’ ‘বিকলাঙ্গ’ মেয়েদের কারণে বরপক্ষের যৌতুক নেওয়ার প্রবণতা বেড়ে যাচ্ছে।

সূত্র: বিবিসি

 

Similar Articles

Leave a Reply