আরিফ জেবতিক

কাজী সালাউদ্দিন যখন ফুটবল ফেডারেশনের দায়িত্ব নেন, তখন আরো অনেকের মতো আমিও আশাবাদী হয়েছিলাম। তাঁর খেলোয়াড়ি জীবনের সোনালি ইতিহাসের জন্য নয়, বরং ব্যবসায়ী হিসেবে তাঁর এবং সালাম মুর্শেদীর সাফল্য আমাকে ভাবতে বাধ্য করেছিল যে তাঁদের ম্যানেজমেন্ট স্কিল ভালো, তাঁরা ফুটবলের সংকট সমাধানের পথে যেতে পারবেন।

সালাউদ্দিন দায়িত্ব নেয়ার পরে যে এপ্রোচ নিয়েছিলেন, সেটি ছিল ফুটবলের হাইপ তৈরি করা। প্রথমেই তিনি মেসির দলকে নিয়ে এনে ঢাকায় গেম খেলালেন, তারপর অনেকগুলো ধারাবাহিক কাজকর্ম করলেন যেগুলো মূলত হাইপ তুলে ফুটবলকে জনপ্রিয় করার চেষ্টা। দেখাই যাচ্ছে যে এই হাইপ কাজে লাগেনি।

সাফল্য এলে স্টারইজম তৈরি হয়, সাফল্য না এলে মিডিয়া কারুকাজ করে স্টারইজমকে খানিক সময়ের জন্য দোলানো যায়, কিন্তু বাতাস শেষে ঠিকই নেতিয়ে পড়ে।

ফুটবল ফেডারেশনের তাই এখন উচিত হচ্ছে আগের কাজ আগে করা। এসব চলতি খেলোয়াড়দের দৌঁড় আমাদের জানা হয়ে গেছে, তাঁদের দিয়ে বেশি কিছু আশা করে লাভ নেই।

এখন অনেক বেশি ইনভেস্ট করতে হবে আমাদের পরের প্রজন্মের উপর। একসময় বছরের পর বছর নির্মান স্কুল ক্রিকেট লীগ খেলে খেলে ক্রিকেটের খেলোয়াড়রা তৈরি হতো, এরকম একটা স্কুল ফুটবল লীগ চালু করা দরকার খুব সিরিয়ালি।( একটা চালু করার কথা ছিল, চালু হয়েছে কী না চোখে পড়েনি।)
বয়েসভিত্তিক ফুটবলকে অনেকগুলো ধাপে না রেখে দুটো বড় ধাপে এনে লীগ চালু করা প্রয়োজন। দুনিয়ার সব বড় বড় দলের কিশোর ফুটবল দল থাকে, আমাদের এখানে এরকম কিছু নেই। এটি করতে বাধ্য করতে হবে। আবাহনী-মোহামেডান-ব্রাদার্সের মতো দলের কিশোর দল থাকতে হবে। কিশোর লীগ চালু করতে হবে।

এগুলোই আমাদের ফাউন্ডেশন গড়ে দেবে। সেই ফাউন্ডেশনের উপর আমরা একদিন ভবন তুলব। আর সেটি না করে যদি ফাউন্ডেশন ছাড়াই চকমকে ভবন তৈরি করে সেখানে আলোকবাতি লাগিয়ে দেই, তাহলে ভুটানের ধাক্কা খেয়ে সেই ভবন চিৎপটাং হবেই।

আমি জানি দেশে আজকাল মাঠ প্রায় নাই হয়ে আসছে, সেখানে ফুটবল ফেডারেশনের পক্ষে সেই মাঠ দখল মুক্ত করা সম্ভব নয়, দায়িত্বও নয়।
তবু বেসিক ফাউন্ডেশন তৈরি করার কাজেই আমাদের সর্বশক্তি নিয়োগ করতে হবে।

ইমরান খানের চেহারা দেখিয়ে এই দেশের ক্রিকেটের উন্নতি হয়নি, এই দেশের ক্রিকেটের উন্নতি হয়েছে নড়াইল থেকে মাশরাফিকে খুঁজে বের করার মাধ্যমে। সাতক্ষীরার সেই অজ পাড়া গাঁয়ের যে ছেলেটি প্রতিদিন ভোরে বড় ভাইয়ের মোটরসাইকেলের পিছু চড়ে অনেক দূরের মাঠে প্র্যাকটিস করতে যাওয়ার অনুপ্রেরণা পেত, সে-ই কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ।

ফুটবলেও মেসির চেহারা আমাদের Messy ভাব থেকে মুক্ত করবে না। ফুটবলের মাশরাফি টু মুস্তাফিজকে খুঁজতে আমাদেরকে আমাদের গ্রামের পথে প্রান্তরই চষে বেড়াতে হবে।

Similar Articles

Leave a Reply