You are here
নীড়পাতা > সংবাদ > আন্তর্জাতিক > প্রিন্স হ্যারির বাগদত্তা সম্পর্কে ১০টি অজানা তথ্য

প্রিন্স হ্যারির বাগদত্তা সম্পর্কে ১০টি অজানা তথ্য

চলতি সপ্তাহে ব্রিটিশ রাজপরিবারের পঞ্চম উত্তরসূরি প্রিন্স হ্যারির সাথে বাগদান সম্পন্ন হয়েছে হলিউড অভিনেত্রী মেগান মার্কলের।আগামী বছর নাগাদ তাঁদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার কথাও রয়েছে।

২০১৬ সাল থেকেই ৩৬ বছর বয়সী মেগানের সঙ্গে ডেটিং করে আসছিলেন ৩৩ বছর বয়সী প্রিন্স হ্যারি।

আমেরিকার এই মিশ্র বর্ণের ও তীব্র স্বাধীনচেতা অভিনেত্রী, মডেল মেগান মার্কলের ১০টি অজানা বিষয়:

১. মেঘান মার্কেলের জন্ম হয়েছে ৪ আগস্ট, ১৯৮১ সালে লস অ্যাঞ্জেলেসে এবং তিনিই প্রথম মিশ্র বর্ণের মানুষ যিনি ব্রিটিশ রাজপরিবারের কোনো সদস্যকে বিয়ে করছেন। তার মা ডোরিয়া র‌্যাগল্যান্ড একজন আফ্রিকান আমেরিকান, যিনি পেশায় একজন সাইকোথেরাপিস্ট বা মনোচিকিৎসক ও ইয়োগা ইনস্ট্রাকটর। তার বাবা থমাস মার্কল ককেশীয় বংশোদ্ভুত। যিনি পেশায় একজন লাইটিং ডিরেক্টর। যার ঝুলিতে আছে অ্যামি অ্যাওয়ার্ডের মতো পুরস্কার।

২. বাবার পেশা সূত্রেই মার্কল লস অ্যাঞ্জেলেসের হলিউড এলাকায় বেড়ে উঠেছেন। পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত তিনি একটি প্রাইভেট স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। তিনি প্রথমে পড়তে যান হলিউড লিটল রেড স্কুলহাউসে। পরে ইমম্যাকুলেট হার্ট হাই স্কুলে পড়েছেন। সেটি ছিল মেয়েদের জন্য একটি প্রাইভেট ক্যাথলিক স্কুল।

৩. তিনি থিয়েটার স্টাডিজে গ্রাজুয়েট হন ২০০৩ সালে, শিকাগোর কাছাকাছি নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

৪. মেগান মার্কল টেলিভিশনে বেশ কয়েকটি অ্যাকটিং অ্যাসাইনমেন্টে কাজ করেছেন। ডিল অর নো ডিল, জেনারেল হসপিটাল, ফ্রিঞ্জ এর মতো শোতে অভিনয় করেছেন। আর সম্প্রতি স্যুটস এর মতো ড্রামা সিরিজে অভিনয় করে খ্যাতি পান।

৫. তিনি তিনটি সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন। ২০১০ সালে তিনি কাজ করেছেন গেট হিম টু দ্যা গ্রিক এবং রিমেমবার মি-তে। আর ২০১১ সালে তিনি অভিনয় করেন হরিবল বসেস নামের সিনেমায়। এছাড়া দ্য ক্যানডিডেট নামের একটি শর্ট ফিল্মেও অভিনয় করেছেন তিনি।

৬. অভিনয় ছাড়া মেগান মার্কল একজন প্রতিষ্ঠিত মডেল। একটি ক্লথিং কম্পানির সঙ্গে মিলে গত বছর নারীদের ফ্যাশন ওয়ার্ক-ওয়্যার এর একটি লাইন রিলিজ করেছেন।

৭. মিস মার্কল মানবাধিকার নিয়েও কাজ করেছেন এবং একজন নারীবাদি হিসেবেও তার খ্যাতি রয়েছে। লিঙ্গ সমতা এবং নারীর ক্ষমতায়ন ইস্যুতেও তিনি বেশ সরব। এবং জাতিসংঘের সঙ্গেও এ বিষয়ে কাজ করেছেন।

৮. উন্নয়নশীল দেশগুলোর শিশুদের জীবন মান উন্নয়নে কাজ করা কানাডিয়ান দাতব্য সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন কানাডা-তেও কাজ করেছেন তিনি। এছাড়া স্কুলে থাকতেই যেসকল নারীবাদী বিশ্বাস গ্রহণ করেছিলেন তিনি, সেসবের জানান দেন প্রায়ই। ১১ বছর বয়সেই তিনি হিলারি ক্লিনটন এবং অন্যান্য হাই প্রোফাইল নারীদের কাছে চিঠি লিখে এক সাবান উৎপাদক কোম্পানির একটি বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করিয়েছিলেন। যে বিজ্ঞাপনে নারীদেরকে শুধু রান্না ঘরের বাসিন্দা হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছিল।

৯. প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে ডেটিং করার আগে মেগান মার্কল আরেকবার বিয়ে করেছিলেন। ২০১১ সালে তিনি অভিনেতা এবং প্রযোজক ট্রেভর এঙ্গেলসনকে বিয়ে করেন । ২০১৩ সালে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়। তার সঙ্গে মেগান মার্কলের মোট ৯ বছরের সম্পর্ক ছিল।

১০. মিস মার্কল প্রিন্স হ্যারির সাক্ষাত পান ২০১৬ সালে। এরপর ছয় মাস ডেটিং করার পর তারা তাদের সম্পর্কের কথা প্রকাশ করেন। গত সেপ্টেম্বরে তারা প্রথম একসঙ্গে জনসম্মুখে আসেন থার্ড ইনভিকটাস গেমস এর উদ্বোধনী উৎসবে। থার্ড ইনভিকটাস সৃষ্টি করেছেন প্রিন্স হ্যারি, শারীরিকভাবে চলাচলে অক্ষম বা আহত এবং প্রবীণ সেনা সদস্যদের জন্য। এরপরই মিস মার্কেল ভ্যানিটি ফেয়ারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার দুজন মানুষ যারা সত্যিই সুখি এবং এরেক অপরের প্রেমে পড়েছি। ’

সূত্র: এনডিটিভি, কালের কন্ঠ

 

Similar Articles

Leave a Reply