You are here
নীড়পাতা > প্রতিবেদন > প্রথম নারী নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম

প্রথম নারী নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম

Your ads will be inserted here by

Easy Plugin for AdSense.

Please go to the plugin admin page to
Paste your ad code OR
Suppress this ad slot.

বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশনে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন কবিতা খানম। বাংলাদেশে নির্বাচন কমিশন গঠিত হয় ১৯৭২ সালে। ৪৫ বছরের মধ্যে এবারই প্রথম একজন নারী নির্বাচন কমিশনার হলেন।

গতকাল সোমবার রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করেন।

এর আগে নির্বাচন কমিশনে ১১ জন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও ২৩ জন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) দায়িত্ব পালন করেন। এর মধ্যে কেউ নারী ছিলেন না। গতবার অনুসন্ধান কমিটি একজন নারীকে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দিতে সুপারিশ করলেও পরে আর তা বাস্তবায়ন হয়নি।

কবিতা খানম তাঁর প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ায় খুব ভালো লাগছে। এই কমিশনের প্রথম নারী হিসেবে আমি গর্বিত।’ সংবিধান ও আইনের আলোকে দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করবেন বলেও জানান তিনি।

কবিতা খানম ১৯৫৭ সালে নওগাঁ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগ থেকে বিএসসি ও এমএসসি ডিগ্রি অর্জনের পর একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি নিয়েছেন তিনি।

বিসিএস জুডিশিয়াল ক্যাডার হিসেবে ১৯৮৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাজশাহী মুন্সেফ কোর্টে যোগদান করেন কবিতা খানম। পদোন্নতি পেয়ে ১৯৯৪ সালে যুগ্ম জেলা জজ ও ২০০০ সালে অতিরিক্ত জেলা জজ হন তিনি। ২০০৬ সালে জেলা জজ হিসেবে পদোন্নতি পান কবিতা। জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীতে কর্মরত ছিলেন তিনি। সর্বশেষ তিনি রাজশাহীর জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৩ সালে কবিতা খানম অবসরে যান।

তাঁর স্বামীও বিচারক। ২০১১ সালে তিনি মারা যান।

মন্ত্রিপরিষদ সূত্রে জানা যায়, আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে কবিতা খানমের নাম প্রস্তাব করা হয়েছিল।

বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ নারী, জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও রাজনৈতিক দল বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও নারী।

 

 

Similar Articles

Leave a Reply