Romena Laisখুলনা যাবো বলে সদরঘাট থেকে সপরিবারে লঞ্চে চড়ে বসব কোন এক ঝলমলে সকালে। সেখান থেকে ট্রলারে বা ছোট লঞ্চে করে ঘুরে দেখব সুন্দরবন। কাছাকাছি পৌঁছে একটা ছই-এর নৌকায় চড়ব। মাঝিরা ধীরে ধীরে এগিয়ে নিয়ে যাবে সে নৌকা। আমরা ঢুকব ম্যানগ্রোভ বনের গহীনে। গোলপাতা গাছের ফাঁকে ফাঁকে দেখে নেব হরিণের মায়াভরা চোখ, স্নানরত কূলবধূর মত জোয়ারের জলে পা ডুবিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা সুন্দরী গাছের সারি পেরিয়ে যাবো নিঃশব্দে। যেন নৌকার শব্দে পালিয়ে না যায় পানি খেতে আসা চঞ্চল হরিণ। নিশ্বাসের শব্দও হতে দেবনা কিছুতে। আমি দেখতে চাই জল খেতে আসা বাঘকেও। ভয়ংকর সেই সৌন্দর্য দেখার স্বপ্ন আমি কত বসন্ত ধরে বুকের গহীনে আগলে রেখেছি।

সুন্দরবনের সৌন্দর্য আমার আজও অদেখা। আজও আমার যাওয়া হয়নি সুন্দরবন। গেওয়া, কেওড়া, গরান, গোলপাতা আর সুন্দরী গাছের কথা কেবল বইতেই পড়েছি। পড়তে পড়তে সেই আমি শিক্ষার্থী থেকে শিক্ষকে রূপান্তরিত হয়েছি। শিক্ষার্থীদের এখন পড়িয়ে শোনাই সুন্দরবনের সৌন্দর্য। আর মনে মনে ভাবি একদিন ঠিকই বেরিয়ে পড়ব সপরিবারে, সুন্দরবন দেখতে। বানর পাতা ছড়ালে যেখানে ছুটে আসে হরিণের দল। আর হরিণ খেতে আসে বাঘ। মৌয়ালরা মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করে। চিত্রকল্পের মতো আমাদের এতো সুন্দর একটা বনভূমি আছে। আমরা প্রকৃতির কৃপায় পাওয়া এই অপার মহিমার কতটুকু মূল্য বুঝতে পেরেছি।

বেশ মনে পড়ে, বিএড’র ফাইনাল ক্লাস টেস্টের দিন মমতাজউদ্দিন স্যারের সামনে ব্ল্যাক বোর্ডে বড় গোলাকার বৃত্ত এঁকে শিক্ষার্থীদের বলছিলাম, একটা দেশের মোট আয়তনের পঁচিশ ভাগ বনভূমি থাকতে হয়। এই বৃত্তটি যদি পুরো আয়তন হয় তাহলে সে হিসেব অনুযায়ী চারভাগের একভাগ বন থাকা চাই। কিন্তু আমাদের বন আছে ষোল ভাগ। সেই ১৯৯৬ এর হিসেবে ষোল ভাগ। অনবরত গাছ কেটে কেটে এখন আমরা কতটুকু বন রেখেছি তার পরিসংখ্যান আমার জানা নেই। যতটুকু আছে তাও ধ্বংস হয়ে যেতে পারে রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পের কারণে। এত কম বনভূমি নিয়ে গ্লোবাল ওয়ার্মিং কেমনে ঠেকাবো আমরা?

আমি পুরো পরিবারসহ দেশে যাব। আমরা সুন্দরবন দেখতে যাব। আমরা হরিণ দেখব, বাঘ দেখব, বানর হরিণের বন্ধুত্ব দেখবো।

যথাযর্থ কর্তৃপক্ষের প্রতি আকুতি- আমাদের সুন্দরবনকে সুন্দরবনের মতো থাকেত দিন, প্লিজ।
লেখকের অন্য লেখাগুলো পড়ুন
আমার হুমায়ূন দর্শন
জর্জ ওয়াশিংটনের আঙ্গিনায়
তাদের ইংরেজি জানার পরিধি, ‘থ্যাংক ইউ’ পর্যন্ত

…………………………………………………………………………………………………………….

মুক্তমত বিভাগে প্রকাশিত লেখার বিষয়, মতামত, মন্তব্য লেখকের একান্ত নিজস্ব। উইমেনওয়ার্ডস.ডটকম-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে এমন ধারণা সর্বক্ষেত্রে যৌক্তিক নয়। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে উইমেনওয়ার্ডস.ডটকম আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় গ্রহণ করে না।

Similar Articles

Leave a Reply